নিউজপোল ডেস্ক:‌ কংগ্রেস ছাড়া এই প্রথম অন্য কোনও দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় সরকার গড়তে সক্ষম হল। সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি একাই পেল ২৯৪টি আসন। এনডিএ পেল ৩৪৯। বুথ ফেরত সমীক্ষা একটা ইঙ্গিত দিলেও ফলাফল তাকে ছাপিয়ে গেছে। এই ফলাফলের আরও কিছু ঘটনা মানুষের প্রত্যাশাকে ছাপিয়ে গেছে।
* আমেঠিতে রাহুলের হার— কংগ্রেসের খাস দুর্গে সভাপতির হার। প্রথম লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে এই নিয়ে মাত্র তিনবার আমেঠি কেন্দ্রে হারল কংগ্রেস। এই কেন্দ্র থেকে জিতেই লোকসভা গেছেন সঞ্জয় গান্ধী, রাজীব, সোনিয়া এবং ২০০৪ থেকে রাহুল। ২০১৯–এ এই আসন বিজেপি নেত্রী স্মৃতির কাছে হারলেন তিনি।
* প্রজ্ঞার জয়— মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত। ২০০৮ সালে মুম্বই হামলায় শহিদ পুলিশ অফিসার হেমন্ত কারকারে সম্পর্কে উল্টোপাল্টা মন্তব্য। মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে ‘‌দেশভক্ত’‌ বলেন। এতকিছুর পরেও ভোপাল থেকে জয়ী সাধ্বী প্রজ্ঞা। তাঁর কাছে হারলেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিং।
* মহাজোট ফ্লপ— উত্তরপ্রদেশে বিজেপি–কে হারাতে হাত মেলায় সপা, বসপা এবং আরএলডি। রাজ্যের মানুষ মায়াবতী আর অখিলেশ, মুলায়মের দুই বিরোধী শিবিরের হাত মেলানো মানতে পারেননি। ক্ষুব্ধ হয়েছেন সপা, বসপার নীচুতলার কর্মীরাও। তাই তাদের ভোটও চলে গেছে বিজেপি–র দিকে।
* চন্দ্রবাবু নাইডুর হার— তৃণমূল সহ দেশের অন্য বিরোধী দলকে সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রে বিজেপি বিরোধী সরকার তৈরির প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু নিজের ঘরই আর সামলাতে পারলেন না অন্ধ চন্দ্রবাবু নায়ডু। প্রদেশের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী। জগনমোহন রেড্ডি ওয়াইএসআর কংগ্রেসের কাছে বিধানসভায় শোচনীয় হার টিডিপি–র।
* দিল্লি থেকে মুছে গেল আপ— দিল্লির সাতটি লোকসভা কেন্দ্র থেকে ধুয়েমুছে গেল আপ। সবথেকে শক্তিশালী প্রার্থী ছিলেন পূর্ব দিল্লির আতিশি মারলেনা। সদ্য বিজেপি–তে যোগ দেওয়া গৌতম গম্ভীরের কাছে সেই আসন হারিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, ওই কেন্দ্রে তৃতীয় স্থানে রয়েছেন আতিশি। দ্বিতীয়তে কংগ্রেসের অরবিন্দর সিং লাভলি।
* কর্নাটকে কংগ্রেস–জেডিএস জোট ফেল— কর্নাটকে ২০১৪ সালের থেকেও সফল বিজেপি। মানুষের মনে দাগ কাটেনি জোট। এমনকী টুমকুর কেন্দ্রে হেরেছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেবগৌড়া।
* বাংলায় বিজেপি–র আবির্ভাব— ২০১৪ সালে পেয়েছিল ২টি আসন। এবার বাংলায় ১৮টি আসন পেল বিজেপি। কলকাতা বাদে সারা বাংলাতেই প্রভাব বিস্তার করেছে পদ্মফুল।
* ডিএমকে–র উত্থান— গত লোকসভা নির্বাচনে একটি আসনও পায়নি তারা। এবার কংগ্রেসের হাত ধরে তামিলনাড়ুকে ব্যপকভাবে ফিরল ডিএমকে। সুপ্রিমো করুণানিধি ছাড়া এই প্রথম ভোট দলের। উল্টে শাসকদল এআইএডিএমকে–র লোকসভা আসন নেমেছে একক সংখ্যায়।
* মেহবুবা মুফতির হার— জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি অনন্তনাগ লোকসভা কেন্দ্রে হেরে গেলেন। শুধু তাই নয় কংগ্রেস, এনসি–র পর তৃতীয় স্থানে রয়েছে পিডিপি।
* মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, গুজরাট, ছত্তিশগড়ে দাঁত ফোটাতে পারেনি কংগ্রেস— মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থানে কয়েক মাস আগেই জিতে সরকার গড়েছে। তবু এই দুই রাজ্যে খাতাই খুলতে পারেনি কংগ্রেস। গুজরাটেও একই হাল। ছত্তিশগড়ে মাত্র দু’‌টি আসন পেয়েছে কংগ্রেস।