নিউজপোল ডেস্ক: আমাদের প্রধানমন্ত্রী খুবই স্বাস্থ্য সচেতন, একথা অস্বীকার করার উপায় নেই। রোজ ভোর ৫টায় ওঠেন এবং রাত ১০টা অবধি কাজ করেন। তা সত্ত্বেও, এই ৬৮ বছরের বয়সে তাঁকে ফিট দেখায়। অনেকেই জানেন, মোদীর এই স্ফূর্তির নেপথ্যে রয়েছে দৈনিক যোগাভ্যাস, বিশেষ করে প্রাণায়ম। তিনি নিজে যেমন শরীরের খেয়াল রাখেন, তেমন দেশের জনগণকেও স্বাস্থ্য সচেতন হওয়ার অনুপ্রেরণা দেন। ২০১৫ সালের বিশ্ব যোগা দিবসে তাঁর শারীরিক কসরতের ভিডিও দুনিয়াজুড়ে ভাইরাল হয়েছিল। এরপর তাঁর একটি ভিডিওতে প্রধানমন্ত্রী এও জানান, প্রাণায়ম ছাড়াও পঞ্চতত্ত্ব (ক্ষিতি, অপঃ, তেজ, মরুৎ, ব্যোম) সম্বলিত একটি বিশেষ ‘ট্র্যাক’-এ রোজ হাঁটেন তিনি, যা শরীর মন তরতাজা করে দেয়। তাঁর এই ধরনের ভিডিও দেশবাসীকেও উদ্বুদ্ধ করছে বলে জানা গেছে।

সাম্প্রতিক এক তথ্য বলছে, দেশের মানুষকে স্বাস্থ্য সচেতন করে তোলার পেছনে যাঁরা অবদান রাখছেন, তাঁদের অন্যতম হলেন নরেন্দ্র মোদী। এমন সেলেব্রিটিদের ৩০ জনের একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল ‘গোকি’ নামক সংস্থার পক্ষ থেকে। সেখানেই তাঁর নাম জ্বলজ্বল করছে। চিত্রতারকা অক্ষয় কুমার, দীপিকা পাড়ুকোন, টাইগার শ্রফ, প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে ক্রীড়াবিদ মেরি কম, এমএস ধোনি, বিরাট কোহলিও আছেন এই তালিকায়। এবছর ২১ জুন যোগা দিবসের আগে বিশেষ কিছু আসনের ভিডিও অ্যানিমেশনের মাধ্যমে তৈরি করে টুইটার অ্যাকাউন্টে ছাড়েন নরেন্দ্র মোদী। যা বরাবরের মতোই ভাইরাল হয়েছিল। নিন্দুকরা তাঁকে যতই সমালোচনা করুক, অন্তত এই ক্ষেত্রে নিজেকে উদাহর হিসেবে খাড়া করতে পেরেছেন প্রধানমন্ত্রী।