নিউজপোল ডেস্ক: যাঁরা গত ১১ বছর ধরে ‘অ্যাভেঞ্জার্স ইনিফিনিটি সাগা’-র সঙ্গে পরিচিত, তাঁরা জানেন এই মহাগাঁথার অন্যতম মূল কাণ্ডারী আয়রন ম্যান/ টোনি স্টার্ক বা রবার্ট ডাউনি জুনিয়র। ২০০৮ সালে প্রথম ‘আয়রন ম্যান’ ছবির শেষ দৃশ্যে সেই যে তিনি বলেছিলেন, ‘আই অ্যাম আয়রন ম্যান’, বর্তমানে সেটা ঘোরতর বাস্তব। আক্ষরিকই, কোনও একটি চরিত্রে এত বছর ধরে অভিনয় করতে করতে, অভিনেতা এবং চরিত্র যে কোথাও না কোথাও মিলেমিশে এক হয়ে যাবেন, তাতে অস্বাভাবিক কিছু নেই।
শুধু পর্দায় নয়, ব্যক্তিগত জীবনেও রবার্ট ডাউনি নাকি টোনি স্টার্কের মতোই দিলদরিয়া। ছবির শুটিং চলাকালীন একদিন হঠাৎই তিনি অ্যাভেঞ্জার্স দলের মহিলা সদস্যদের লাঞ্চের ট্রিট দেন। আগের থেকে কোনও খবর না থাকায়, অভিনেতাদের বেশিরভাগই তখন নিজেদের চরিত্রের সাজপোশাকেই ছিলেন। ‘গার্ল পাওয়ার’ নামক সেই লাঞ্চে উপস্থিত ছিলেন ব্রি লারসন, জো সালডানা, পম ক্লেমেন্টেইফ, গিনেথ প্যালট্রো, ইভাঞ্জেলাইন লিলি, ডানাই গুরিরা, এলিজাবেথ অসলেন, ক্যারেন গিলিয়ান এবং লেটিটিয়া রাইট।
এমনিতে খুব উষ্ণ মনের মানুষ হলেও, শুটিং-এর শেষদিন খুব একটা অবেগপ্রবণতা দেখাতে চাননি ডাউনি। পরিচালক জো রুসো জানিয়েছেন, ডাউনির জন্যে এই ১১ বছর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেটার শেষ মুহূর্তে তিনি যে আবেগঘন হয়ে পড়বেন, এটাই প্রত্যাশিত ছিল। কিন্তু সেসবের মধ্যে যাননি ডাউনি। একবার জড়িয়ে ধরা এবং হাত মেলানোই তাঁর জন্য যথেষ্ট ছিল। আবেগের জালে সেই মুহূর্তে অন্তত নিজেকে জড়াতে চাননি তিনি। সোশ্যাল সাইটে নিয়মিত তাঁর সামাজিক কাজকর্মের খবর থাকে। পাশাপাশি থাকে রসিক মনোভাবের পরিচয়ও।

‘এন্ডগেম’ ছবির এক অন্যতম শ্রেষ্ঠ সংলাপ ‘আই লাভ ইউ ৩০০০’। কিন্তু খুব বেশি লোক জানেন না, যে এটা আদতে কোনও সংলাপই নয়। এই কথাটি ডাউনি এবং তাঁর সন্তানেরা একে অপরকে বাস্তব জীবনেই বলে থাকেন। পরিচালকদের কথায়, এই সংলাপ এমসিইউ-র ইতিহাসে অমর হয়ে থাকবে।

পাশাপাশি তাঁর সহ শিল্পীরাও প্রশংসায় পঞ্চমুখ। কাহিনির আর এক মূল কাণ্ডারী ক্রিস ইভান্স (ক্যাপ্টেন আমেরিকা/ স্টিভেন রজার্স) শুটিং শেষ হওয়ার পর সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, অভিনয় চলাকালীন প্রতি মুহূর্তে কীভাবে তাঁকে সহযোগিতা করেছিলেন ডাউনি।
‘ইনিফিনিটি সাগা’ শেষ হয়ে যাওয়া নিয়ে নিজের ভাবনাকে আপাতত পেছনে রাখছেন ইভান্স। বরং বলছেন, এই ‘এপিক’ শুরু হয়েছিল ডাউনিকে দিয়েই। কেউ ভাবতেও পারবে না তাঁর কেমন লাগছে। এই চরিত্র ব্যাটম্যান বা সুপারম্যানের মতো নয়, যেখানে একাধিক অভিনেতা অভিনয় করবেন। দ্বিতীয় কারও পক্ষে আয়রন ম্যান হওয়া সম্ভব নয়।