নিউজপোল ডেস্ক:‌ মসজিদে মূলত পুরুষরাই নামাজ পড়েন। বেশিরভাগ মসজিদে নারীর স্থান নেই। কয়েকটি দেশে অবশ্য মেয়েদের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদ রয়েছে। তবে সে সংখ্যা নগণ্য।
একজন পুরুষ ইমামের পেছনে দাঁড়িয়ে নামাজ আদায়ের দৃশ্য খুব স্বাভাবিক। কিন্তু মহিলা ইমামের পিছনে দাঁড়িয়ে পুরুষরা নামাজ আদায় করছে, এ ঘটনা কখনও দেখা যায়নি। এবার দেখা গেল। ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনের একটি মসজিদে।
মরিয়ম নামে ওই মসজিদে মহিলাদের পাশাপাশি পুরুষরাও নামাজ আদায় করতে পারেন। তবে সেখানে কোনও পুরুষ ইমামের দায়িত্ব নিতে পারবেন না। মসজিদটিতে ইমাম সব মহিলা। আর পুরুষরা এখানে নামাজ পড়তে চাইলে মহিলাদের পিছনের সারিতেই দাঁড়াতে হবে।
মসজিদটি প্রতিষ্ঠায় নেপথ্যে রয়েছে সিরিয় বংশোদ্ভুত শেরিন খানকান। তার বাবা সিরিয়ার নাগরিক এবং মা ডেনমার্কের নাগরিক। শেরিনের মতে, ‘‌আমরা আমাদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো পুরুষতান্ত্রিক নিয়ম মেনেই চালাই। এটা শুধু ইসলামেই নয়, ইহুদি, খ্রিস্টান এবং অন্যান্য ধর্মেও পুরুষদের আধিপত্য রয়েছে। আমরা এই বিষয়টিকেই চ্যালেঞ্জ করতে চাই।’‌ সে কারণেই এ ধরনের একটি উদ্যোগ বলে জানিয়েছেন তিনি।
তিনি আরও জানান, এই মসজিদ নির্মাণ নিয়ে মুসলিম কমিটিগুলো ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছে। তবে অনেকেই আবার এই বিষয়টিকে ভালোভাবে গ্রহণ করতে পারেননি। শেরিনের দাবি, ইসলাম মহিলাদের ইমাম হওয়াকে অনুমোদন করে। তবে অনেকেই না জেনে এর সমালোচনা করে থাকেন।
যাঁরা জানেন, তাঁরা শেরিনের এই কাজকে সমর্থন করছেন। কেবল রক্ষণশীলরা মানতে পারছেন না। রক্ষণশীলদের দাবি, মহিলাদের জন্য আলাদা মসজিদ নির্মাণকেও ইসলাম সমর্থন করে না। যদিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা সহ বিশ্বের অনেক দেশেই মহিলাদের জন্য আলাদা মসজিদ রয়েছে। কিন্তু সেখানে পুরুষ ইমামের অধীনেই তাদের নামাজ আদায় করতে হয়। এবার ডেনমার্কেই শুধু স্বাধীনভাবে মহিলা ইমারের অধীনে মহিলারা নামাজ আদায় করতে পারবে।