নিজস্ব সংবাদদাতা:‌ আন্দোলনকারী জুনিয়র ডাক্তাররা বারবার জানিয়েছেন, শিক্ষাক্ষেত্রে অচলাবস্থা কাটাতে তাঁরাও আগ্রহী। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসতেও চান তাঁরা। কিন্তু তাঁদের কাছে সোমবার নবান্নে বৈঠকের কোনও আমন্ত্রণ পত্রই আসেনি। অবশেষে এসে পৌঁছল সেই আমন্ত্রণপত্র। তাতে সই রয়েছে স্বাস্থ্যভবনের স্বাস্থ্য–শিক্ষা অধিকর্তা ডা:‌ পি কে মিত্রর।
চিঠিতে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, রাজ্যের মোট ১৪টি মেডিক্যাল কলেজের দু’‌জন করে প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠকে বসতে সম্মত হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক হবে নবান্নে। সোমবার, ১৭ জুন দুপুর আড়াইটের সময়। যাঁরা বৈঠকে যোগ দেবেন, তাঁদের নাম জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে। বৈঠকে যাওয়ার সময় পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতেও বলা হয়েছে। তবে সেই বৈঠকে সংবাদ মাধ্যমের উপস্থিতি নিয়ে একটা কথাও বলা হয়নি।
বৈঠকে যাবেন কিনা, সেই নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে এদিন জেনারেল বডি মিটিংয়ে বসেছেন আন্দোলনকারীরা। সেখানে যোগ দিতে আসেন স্বাস্থ্য–শিক্ষা অধিকর্তা ডা:‌ পি কে মিত্রর। তিনি জিবি বৈঠকে প্রবেশের আগে সাফ জানিয়ে দেন, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আন্দোলনকারীদের দাবি–সম্বলিত যে চিঠি ফরোয়ার্ড করেন, তাতে সংবাদ মাধ্যমের উপস্থিতির কথা লেখা নেই। তাই আন্দোলনকারীরা নতুন করে কোনও দাবি করলে তা মানা হবে না। বৈঠকের পর সরকারি মেডিক্যাল কলেজের প্রতিনিধিরা সাংবাদিকদের সঙ্গে চাইলে কথা বলতে পারেন।

নবান্নে ১৪টি সরকারি মেডিক্যাল কলেজের প্রতিনিধিদের নিয়ে যাওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই এনআরএস–এ বাস পাঠানো হয়েছে। যেখানে জিবি মিটিং চলছে, তার বাইরেই দাঁড়িয়ে রয়েছে স্বাস্থ্যভবনের বাসটি। তাতে প্রতিনিধিরা চাপবেন কিনা, সিদ্ধান্ত হবে জিবি বৈঠকের পর।