নিউজপোল ডেস্ক: এনআরএস কাণ্ডে চিকিৎসকদের আন্দোলন ক্রমেই বৃহত্তর হচ্ছে। চিকিৎসকরা গণইস্তফা দিচ্ছেন। সাগর দত্ত হাসপাতাল, উত্তরবঙ্গ হাসপাতাল কিংবা আরজি কর হাসপাতালের মতো ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ ও একএসকেএম হাসপাতালের চিকিৎসকরাও পদত্যাগ করছেন।

নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসকদের আন্দোলন চারদিনে পড়েছে। এখনও পর্যন্ত কোনও সমাধানসূত্র মেলেনি। মুখ্যমন্ত্রী বৃহস্পতিবার দুপুরে পুনরায় পরিষেবা চালু করার নির্দেশ দিলেও বিক্ষোভকারীরা তাঁদের সিদ্ধান্তে অনড়। মুখ্যমন্ত্রীকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবিও জানান তাঁরা। ইতিমধ্যে এই দাবিতে শুক্রবার আরজি কর মেডিক্যাল কলেজের একশোরও বেশি চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছেন। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই পদত্যাগ করলেন ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের নিউরোলজি, অর্থোপেডিক, ইউরোলজি প্রভৃতি বিভাগের ২৬ জন চিকিৎসক। সংবাদসূত্রে জানা গিয়েছে, এসএসকেএম হাসপাতালের শতাধিক চিকিৎসকও ইস্তফার আবেদন জানিয়েছেন। সব মিলিয়ে ধীরে ধীরে যে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে উঠছে, বলা বাহুল্য।

নীলরতন সরকারের দু’জন চিকিৎসকের ওপর হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সারা দেশে সশস্ত্র পুলিশবাহিনী ও নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছেন জুনিয়র ডাক্তাররা। এরই মধ্যে কাকদ্বীপ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল ও এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালেও ডাক্তারের ওপর চড়াও হওয়ার ঘটনা ঘঠেছে। স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যে চিকিৎসকদের নিরাপত্তার প্রশ্ন জোরালো হয়ে উঠছে ক্রমে। বাড়ছে ইস্তফা দেওয়ার ঘটনাও।