আলাদিনের সেই দৈত্য নেই। কিন্তু মোবাইল রয়েছে। তাতে ইন্টারনেট রয়েছে। একটা ক্লিক করলেই বাড়িতে তিন দিন পর হাজির পছন্দের জামা–জুতো। ঠিক যেন ম্যাজিক। পছন্দ না হলে নো চাপ। আবার বোতাম টিপেই ফেরত দিন।
ভিড়ভাট্টায় গরমে ঘেমেনেয়ে ঘোরাঘুরি নেই। অফিস বা কলেজ যাতায়াতের পথেই শেষ কেনাকাটা। নয়তো যখন ইচ্ছে লগ ইন করুন, আর শুরু করে দিন কেনাকাটা। দোকান বন্ধ হওয়ার সময়সীমা বাঁধা নেই।
এত সুবিধার মাঝে কিছু অসুবিধাও কিন্তু রয়েছে। ভেবেচিন্তে পদক্ষেপ না করলে সমস্যা হতে পারে। কী রকম?‌ জেনে নিন—
❏‌ খুঁটিনাটি দেখে নিন—
একটা দোকান ঘুরেই তো আর জিনিস কেনেন না‌!‌ একই নিয়ম মেনে চলুন অনলাইন শপিংয়ের ক্ষেত্রেও। একটা সাইটে দেখেই অর্ডার করে ফেলবেন না যেন। আর কয়েকটা সাইট দেখে নিন। দামের হেরফের হতেই পারে। তাছাড়া কোনও কোনও সাইটে শিপিং ফি থাকে না। সেক্ষত্রে জিনিসটির দাম আরও কম পড়বে।
আর একটা কথা, জিনিস কেনার আগে সেই সম্পর্কে অন্য ক্রেতাদের মতামত পড়ে নিন। তা পড়ে জিনিসটির ব্যবহারিক দিকগুলো বুঝতে পারবেন। ধরুন একটা টিফিনবক্স কিনবেন। আপনি ভাবছেন, সেটা যথেষ্ট বড়। ছবিতে তাই দেখাচ্ছে। আসলে হয়তো ততটা নয়। আগের ক্রেতারা সেটাই জানিয়েছে। ব্যাস্‌!‌ পড়েই সতর্ক হয়ে গেলেন।
❏‌ সেল্‌ সেল্‌ সেল্‌—
অনলাইন শপিংয়ের বড় আকর্ষণ। শপিং মলে এই ছাড়া পাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট মরসুম পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। কিন্তু অনলাইন শপিং সাইটে সারা বছরই কিছু না কিছু ছাড় লেগে রয়েছে। প্রথমবারের ক্রেতাদের জন্য বেশরিভাগ সাইটই বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা রাখে। তাই আগে দেখে নিন, কোথায় কতটা ছাড় রয়েছে। সেই বুঝে পছন্দের জিনিস কিনে ফেলুন।
❏‌ ফেরত বা বাতিলের নিয়ম জানুন—
অনেক নতুন অনলাইন শপিং সাইটেই অর্ডার বাতিল করার বা কেনার পর ফেরতের ব্যবস্থা নেই। জিনিস কেনার আগে সেই সাইটের রিটার্ন বা ক্যানসেলের পলিসি খতিয়ে পড়ে নিন। যাতে পরে ভুগতে না হয়।
বিদেশি কোনও সাইট থেকে কিছু কেনার আগে বিমার বিষয়টি জেনে নিন। আগেভাগে দাম মিটিয়ে দিলেন। তার পর দেখা গেল, আমদানির সময় জিনিসটি নষ্ট হয়ে গেল। তখন?‌ বিমা করা থাকলে ওই অনলাইন সংস্থা আপনাকে নতুন জিনিস পাঠাতে বাধ্য।
❏‌ ফিটিং—
পোশাক কেনার আগে ফিটিং দেখে নিন। এক্ষেত্রে সাহায্য করবে সাইজ গাইড। মনে রাখবেন, সব সাইটে জামা কাপড়ের মাপ এক হয় না। একটি সাইট থেকে আপনি হয়তো ‘‌এম’‌ সাইজের পোশাক কেনেন। অন্য সাইট থেকে ওই একই মাপের পোশাক কিনলে গায়ে ছোট–বড় হতে পারে। তাই সব সাইটে ঢুকে সাইজ গাইড দেখুন।
মডেল কী মাপের পোশাক পরে রয়েছে, সেটিও দেখে নিন। আর কেনার আগে অবশ্যই পোশাক কী কাপড়ে তৈরি, দেখে নিন।
❏‌ বুঝেশুনে খরচ করুন—
মোবাইলে লগ ইন করে কিনতে কিনতে খেয়াল থাকে না। কখন যে আপনার বাজেট ছাপিয়ে যাচ্ছে, টেরই পেলেন না। তার পর মাথায় হাত।
তার থেকে বরং কেনার সময় একটা ডায়েরিতে লিখে রাখুন। হিসেব থাকবে। কোনও জিনিস ফেরত দিলে বা বদলালে সেই হিসেবও লিখে রাখুন। টাকা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ফেরত এলে অ্যাকাউন্টের ডিটেল নিয়ে নিন। সব সময় মেসেজ নাও আসতে পারে।
❏‌ বিশ্বাসযোগ্যতা—
সব সাইটে ক্যাশ অন ডেলিভারির সুযোগ থাকে না। সেক্ষেত্রে আগেভাগেই অনলাইনে দাম বাবদ টাকা ট্রান্সফার করতে হয়। এই পদক্ষেপ নেওয়ার আগে সাইট সম্পর্কে সবকিছু যাচাই করে নিন। ফোন নম্বর দেওয়া থাকলে, তাতে কল করে খোঁজ নিন। নয়তো প্রতারিত হতে পারেন।
❏‌ সোশাল মিডিয়া—
এখন অনেক বুটিক বা ছোটখাটো ব্যবসায়ীরা সোশাল সাইটে বিজ্ঞাপন দিয়ে নিজেদের পণ্য বিক্রি করেন। হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জারে অর্ডার দিতে হয়। সেদিকেও নজর রাখুন। অনেক সময়ই ভালো জিনিস অনেক কম দামে পাওয়া যায়।