নিউজপোল ডেস্ক: ভারতীয়দের মধ্যে হাইপারটেনশন বা উচ্চ রক্তচাপের প্রবণতা বাড়তে থাকলেও, সমীক্ষা বলছে এই রোগ সম্পর্কে বেশিরভাগ ভারতীয়ের মধ্যে সচেতনতা, রোগ নির্ণয় করে চিকিৎসা করানোর প্রবণতা খুবই কম। পিএলওএস নামক একটি সংস্থার গবেষণা জানাচ্ছে, ৫০ শতাংশ ভারতীয় আদতে জানেনই না এটা কী রোগ। প্রতি সাত জনের মধ্যে একজন (১৩ শতাংশ) সাধারণ রক্তচাপের ওষুধ খান এবং প্রতি দশ জনের মধ্যে একজন (আট শতাংশ) এই রোগের ওপর কোনও নিয়ন্ত্রণই করতে পারেন না বলে জানা গেছে।

রোগ সামলানোর ক্ষেত্রে বেশ তারতম্য পাওয়া গেছে শহর এবং গ্রামাঞ্চলের মধ্যে। এই রোগ সম্বন্ধে সচেতনতা সবথেকে কম ছত্তিসগড়ে (২২.১ শতাংশ) এবং সবথেকে বেশি পুদুচ্চেরিতে (৮০ শতাংশ)। শহরাঞ্চলে ৪৭.৯ শতাংশ মানুষ তাঁদের রোগের বিষয়ে সচেতন হলেও, মাত্র ১৪.৯ শতাংশ এর চিকিৎসা করান এবং ৮.৩ শতাংশ এই রোগকে নিজেদের আয়ত্তে আনতে পেরেছেন। গ্রামাঞ্চলে সচেতনতার মাত্রা ৪২.৫ শতাংশের, চিকিৎসা করিয়েছেন ১২.৩ শতাংশ এবং রোগ আয়ত্তে আনতে পেরেছেন ৭.৭ শতাংশ। রাজ্য বিশেষে আর্থিক বিকাশের কথা মাথায় রেখেও দেখা যাচ্ছে, হাইপারটেনশনের সচতেনতা এবং চিকিৎসা বিষয়ে তারতম্য থেকে যাচ্ছে বিভিন্ন রাজ্যের মধ্যে। সমীক্ষা জানাচ্ছে, এই রোগের ব্যাপারে সচেতনতা এবং চিকিৎসা নেওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি হওয়ার প্রয়োজন পুরুষদের মধ্যে, গ্রামাঞ্চলে এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের মধ্যে।

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সিদের মধ্যে ৭,৩১,৮৬৪ জনের ওপর এই সমীক্ষা করা হয়েছিল জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়, হার্ভার্ড টি এইচ চ্যান স্কুল অফ পাবলিক হেলথ এবং ভারতের জনস্বাস্থ্য সংস্থার উদ্যোগে। উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হল, সমীক্ষায় প্রমাণিত যে হাইপারটেনশন আয়ত্তে আনার বিষয়ে মহিলারা পুরুষদের তুলনায় অনেক বেশি সফল। ১০.৯ শতাংশ মহিলা এই রোগের জন্য সঠিক ওষুধ খান। পুরুষদের মধ্যে এই সংখ্যাটা ৫.৩ শতাংশ।