নিউজপোল ডেস্ক: আইপিএল শেষ। ক্রিকেটারা এখন আইপিএলের রেশ কাটিয়ে বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত। কিন্তু দর্শকরা কিছুতেই যেন আইপিএলের রেশ কাটিয়ে উঠতে পারছেন না। তাঁদের মনে উঁকি দিচ্ছে সেই লাল রঙের অফ শোলডার টপ পরা তরুণীর উচ্ছ্বাস। গত ৪ মে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর শেষ ম্যাচে চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ফুটেজেই পুরুষ-হৃদয়ে ঝড় তুলেছিল তাঁর মিষ্টি লাজুক হাসি। আর তারপরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় রাতারাতি ভাইরাল হয়ে উঠেছিলেন দীপিকা ঘোষ। তবে এখানেই শেষ নয়। নিমেষেই ইনস্টাগ্রামে তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যা বেড়ে ২ লক্ষ ৭০ হাজারে পৌঁছয়। তাঁর নামে একাধিক ফেক অ্যাকাউন্টও তৈরি হয়েছে এই আরসিবি গার্লের। তখন বিষয়টা বেশ ভাল লাগলেও বর্তমানে অত্যন্ত হতাশ তিনি। রাতারাতি এই জনপ্রিয়তা ঠিক যেন মেনে নিতে পারছেন না। ট্রমার মধ্যে রয়েছেন তিনি। তরুণী নিজেই সেই কথা জানান চিঠিতে। তিনি আরও জানান, ‘আমি কোনও সেলেব্রিটি নই, যে আমাকে এত গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। শুধু ম্যাচ দেখতে গিয়েছিলাম। সাধারণ মানুষের মত দর্শক আসনে বসে খেলা উপভোগ করছিলাম। কোনও রকম দৃষ্টি আকর্ষণ করার বিন্দুমাত্র ইচ্ছে ছিল না আমার। আর এত মনযোগ আমি চাই না।’ তরুণী এখানেই থেমে থাকেনি। আরও বলেন, ‘আমি অবাক হয়ে গেছি। সবাই আমার ব্যাপারে জেনে গেছে। ব্যক্তিগত জীবন প্রকাশ্যে চলে এসেছে। অনেকেই আমার বিষয়ে বাজে কথা বলছেন। মহিলারা আমাকে আক্রমণ করছেন। আমার অনুরোধ, আপনারা এমন কাজ করবেন না। এভাবে কাউকে বিচার করা যায় না।’