নিউজপোল ডেস্ক: ২৪ বছর ভারতীয় ক্রিকেটকে প্রায় একার কাঁধে বহন করেছেন তিনি। শচীন রমেশ তেন্ডুলকর, তর্কসাপেক্ষে পৃথিবীর সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার, অবসর নিয়েছেন অনেকদিন হয়ে গেল। তা সত্ত্বেও, ভারতীয় ক্রিকেটের মুখ বলতে এখনও তিনিই। তাঁর রেকর্ড স্পর্শ করার ক্ষমতা যদি কারও থেকে থাকে তিনি বর্তমান ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বিশেষ করে একদিনের ক্রিকেটে তিনি যে কায়দায় রান করে চলেছেন তা অবিশ্বাস্য বললেও কম বলা হবে। আসন্ন ৫০ ওভারের বিশ্বকাপে মূলত তাঁর কাঁধেই রান করার দায়িত্ব। কিন্তু শচীন বলছেন, বিশ্বকাপ জিততে হলে শুধু বিরাট খেললে হবে না, অবদান রাখতে হবে গোটা দলকে। একা বিরাট বিশ্বকাপ জিতিয়ে দিতে পারবেন বলে বিশ্বাস করেন না মাস্টার ব্লাস্টার।

বিশ্বকাপ যখন কড়া নাড়ছে, সেই সময়ে দাঁড়িয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করলেন দেশের ক্রিকেট ঈশ্বর। একদিনের ক্রিকেট যে ক্রমাগত ব্যাটসম্যানদের খেলা হয়ে দাঁড়িয়েছে তা নিয়ে খুব একটা সন্তুষ্ট নন তিনি। বলছেন, মরা পিচ এবং দুটো বল দিয়ে খেলা বোলারদের জন্য আদৌ সুখকর নয়। আগে একটা বলে খেলা হত, ৩০ ওভার হলে রিভার্স সুইং করত সেই বল। শেষের দিকে বল নরম হয়ে যাওয়ায় রান করা হত কঠিন। এখন দুটো নতুন বল থাকায় রিভার্স সুইং তো হয়ই না, উলটে বল শক্ত থাকায় বাউন্ডারি পার করতে সুবিধা হয় ব্যাটসম্যানদের। সঙ্গে তো গদার মতো ব্যাট আছেই।

ইংল্যান্ডের মাটিতে এবার রিস্ট স্পিনাররা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করছেন শচীন। দলে কুলদীপ যাদব এবং যুজবেন্দ্র চাহাল থাকায় সেদিক থেকে লাভবান হবে ভারত, এমনটাই মনে করছেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজে এই দুই স্পিনার মার খেলেও তাতে খুব একটা চিন্তিত হতে বারণ করছেন শচীন। তিনি মনে করেন, ধোনি, কোহলি, রোহিতের অভিজ্ঞতা এবং চাহাল, কুলদীপ, হার্দিক, বুমরার তারুণ্যের মিশেলে এক দারুণ শক্তিশালী দল রয়েছে ভারতের। তবে একজন দু’জন নয় খেলতে হবে গোটা দলকেই।