নিউজপোল ডেস্ক: মাছ নাকি দৈত্য? জাল তুলতে গিয়ে চোখ ছানাবড়া মৎস্যজীবীদের। গত দু’দশকেও স্থানীয় বাসিন্দাদের কেউ এমন দৃশ্য দেখেননি। আশেপাশে যাঁরা ছিলেন, তাঁদেরও ভিরমি খাওয়ার জোগাড়। দশ, বিশ নয়, প্রায় ১০০ কিলো ওজনের আড় মাছ ধরা পড়ল জালে। জলে ভরা তিস্তা বাঁধে গত শুক্রবার দুপুরে এমনই ঘটনা ঘটছে।
গাজলডোবা এলাকায় মৎস্যজীবীরা নৌকা নিয়ে মাছ ধরতে যান ব্যারেজে। শুক্রবার সকালেও ব্যতিক্রম হয়নি। মিলন পল্লি এলাকায় মাছ ধরতে গিয়েছিলেন স্থানীয় জেলেরা। কিন্তু এতটাই ভারী যে, জাল তোলার সময় একা পেরে উঠছিলেন না তিনি। আশেপাশের মৎস্যজীবীদের ডেকে জল থেকে কোনওমতে তোলার চেষ্টা করেন তিনি। তখনই দেখেন দৈত্যকায় এক বাঘা আড় মাছ। সঙ্গীদের সাহায্যে জলের মধ্যেই দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখা হয় সেটিকে। তারপর ডাঙায় তোলা হয়। ওজন প্রায় ১০০ কেজির মতো। তবে শুধু এই বিশালাকার মাছটিই নয়, আরও সাতটি আড় মাছ ধরা পড়েছিল জালে। তবে সেগুলির ওজন ১০ কেজির আশেপাশে। শিলিগুড়ির মাছ ব্যবসায়ীদের কাছে নিমেষেই খবর পৌঁছয়। তারপর হয় দর কষাকষি। জ্যোতিষ দাস নামে একজন ৬২ হাজার টাকায় কিনে নেন মাছটি। যদিও ৬০০ টাকা কেজি দরে বাজারে বিকোচ্ছে সেই মাছটি।
স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী সুবল বালা বলেন, ‘এর আগেও এখানে বড় বড় মাছ ধরা পড়েছে। কিন্তু এক কুইন্টাল ওজনের এত বড় মাছ আগে কখনও দেখিনি।’ তিস্তা ব্যারেজের লকগেটের এই খবর কানাঘুষো হতে বেশি সময় লাগেনি। স্থানীয় বাসিন্দাদের উৎসাহের শেষ নেই। প্রতিবেশী গ্রাম থেকেও ভিড় জমায় কয়েকশো মানুষ।