নিউজপোল ডেস্ক: সমীক্ষা অনুসারে, ইন্টারনেটে পাওয়া বিভিন্ন পর্ন ভিডিওর মধ্যে সবথেকে জনপ্রিয় ‘অ্যামেচার পর্ন’। এক্ষেত্রে পরিকল্পনা করে যৌন সংসর্গের ভিডিও তুলে তা পোস্ট করা হয় না। অনেকের ক্ষেত্রেই, তাঁদের অজ্ঞানতা এবং অসম্মতিতে এই ভিডিও রেকর্ড করে আপলোড করা হয় ইন্টারনেটে। যাঁরা স্বেচ্ছায় এই পর্নে কাজ করেন, তাঁরাও যে ব্যক্তিগত জীবনে দর্শকদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে খুব আগ্রহী, তা নয়। কিন্তু সম্প্রতি একটি আবিষ্কারের ফলে আপাতদৃষ্টিতে খর্ব হতে চলেছে মহিলাদের কিছু মৌলিক অধিকার।
চীনের সোশ্যাল সাইট ওয়েইবো-তে সাম্প্রতিক একটি পোস্ট ভাইরাল হয়েছে। ‘অরিজিনাল পোস্টার’ (ওপি) নামক একটি প্রোফাইল থেকে দাবি করা হয়েছে, তাঁর কাছে এরকম একটি প্রযুক্তি রয়েছে যার সাহায্যে জেনে নেওয়া সম্ভব কোনও নির্দিষ্ট মহিলা কোনও পর্ন ভিডিওতে রয়েছে কিনা। নিজেকে জার্মানির বাসিন্দা দাবি করে এই ব্যক্তি জানিয়েছেন, যে কোনও মহিলার সোশ্যাল সাইট থেকে নেওয়া ছবির সঙ্গে পর্ন সাইট থেকে নেওয়া ছবি মিলিয়ে দেখে এই প্রযুক্তি। তার পর সঠিক ভাবে জানিয়ে দিতে পারে, উল্লিখিত মহিলার কোনও পর্ন ভিডিও রয়েছে কিনা। তিনি এও দাবি করেছেন, ইতিমধ্যেই ১০০,০০০ জন মহিলার ক্ষেত্রে সফল হয়েছে তাঁর এই প্রযুক্তি।

রাষ্ট্রবিজ্ঞানে গবেষণারত ইকিন ফিউ নামক এক ছাত্র ওয়েইবো-র এই পোস্টটি ছড়ান টুইটারে। মাদারবোর্ড নামক এক সংস্থা এই টুইটটিকে স্বতন্ত্র ভাবে অনুবাদ এবং যাচাই করে দেখেন। নিজের দাবির ক্ষেত্রে কোনও তথ্যপ্রমাণ দেখাননি ওপি। মাদারবোর্ডের তরফ থেকে তাঁকে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে ওপি জানান, আগামী সপ্তাহে ‘ডেটাবেস স্কিমা’ এবং ‘টেকনিক্যাল ডিটেলস’ প্রকাশ করবেন তিনি। তবে চীনে তাঁর পোস্ট এবং টুইটারে ইকিনের টুইট রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে। ওপি প্রাথমিকভাবে জানিয়েছিলেন, প্রেমিকা বা স্ত্রী কোনও দিন পর্ন ভিডিওতে ছিলেন কিনা, সেটা জানার অধিকার রয়েছে তাঁর সঙ্গীর। এই কথায় বিতর্ক শুরু হওয়ায়, তিনি পরবর্তীকালে জানান কোনও মহিলার সম্মতির অভাবে তাঁর কোনও পর্ন ভিডিও তৈরি করা হয়েছে কিনা, সেটা জানার জন্যই এই প্রযুক্তি। তবে তাতে ভুলছেন না নেটিজেনরা। ওপি-র প্রাথমিক যুক্তিই এই প্রযুক্তির মূল কারণ এবং পরে তিনি বিতর্ক এড়াতে সাফাই গেয়েছেন মনে করছেন তাঁরা। ওপি-র পোস্টের তলায় এই প্রযুক্তি ছেলেদের ক্ষেত্রে তৈরি করা সম্ভব কিনা জানতে চেয়েছেন অনেকে। আবার অনেকে মনে করছেন, এটা নারীদের এবং তাঁদের স্বাধীনতাকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা।