নিউজপোল ডেস্ক: মোবাইল নিরাপত্তার ক্ষেত্রে পিন বা প্যাটার্ন লকের জমানা শেষ। অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে ছেয়ে গিয়েছে। ফিঙ্গারপ্রিন্ট এই সময়ের এমনই জনপ্রিয় একটি প্রযুক্তি। মৃত ব্যক্তির ফিঙ্গারপ্রিন্টে ফোনের লক খোলে কিনা জানেন?
অনেকেই হয়তো বলবেন যে, মৃত ব্যক্তির ফিঙ্গারপ্রিন্টে ফোন আনলক হওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে সম্ভবও।
লিনাস ফিলিপ নামে এক ব্যক্তির ক্ষেত্রেও ঘটেছিল এরকম ঘটনা। ফ্লোরিডার লার্গোতে ফিলিপকে গুলি করে খুন করেছিল পুলিশ। অন্য অপরাধের তদন্ত করার স্বার্থে তদন্তকারী দল ফিলিপের ফোনের লক খুলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু পারেননি। কেন খোলা যায়নি সেই বিষয়ে খতিয়ে দেখতে গিয়ে প্রযুক্তিবিদদের শরণাপন্ন হন গোয়েন্দারা। অবশেষে জানা যায় মৃত ফিলিপের আঙুলের ছাপে ফোন আনলক হওয়া সম্ভব নয়। তাঁর দেহে রক্ত সঞ্চালন বন্ধ হওয়ায় আঙুলের ছাপ পরিবর্তিত হয়েছিল। যার ফলে আগের সঙ্গে মেলেনি মৃত্যুর পরের আঙুলের ছাপ।

কিন্তু মৃত ব্যক্তির আঙুলের ছাপে যে লক ভাঙতে পারে সেকথাও বলেছেন প্রযুক্তিবিদরা। তাঁরা এই ক্ষেত্রে যে বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন, সেটি হল কতক্ষণ আগে ওই ব্যক্তি মারা গিয়েছেন সেই সময়ের ব্যবধান। গবেষক অনিল জৈন জানিয়েছেন, ‘মৃত ব্যক্তির আঙুলের ছাপ জীবিত ব্যক্তির আঙুলের ছাপের সঙ্গে কোনওদিনই মিলবে না।’ তবে গবেষকদল এও জানিয়েছেন যে, সদ্য মৃত ব্যক্তির আঙুলের ছাপে খুলতে পারে ফোনের লক।