নিউজপোল ডেস্ক: যাঁরা পর্বতারোহণ করেন, তাঁরা জানেন এটা কত বড় নেশা। শত বিপদের ঝুঁকিও আটকাতে পারে না অভিযাত্রীদের। সেরকমই একজন পাহাড়প্রেমী নেপালের নাগরিক গোপাল শ্রেষ্ঠা। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ৫৬ বছর বয়সি গোপাল এইচআইভি সংক্রমিত। কিন্তু এইচআইভি ভাইরাস রুখতে পারেনি নিজের লক্ষ্যে তাঁর এগিয়ে চলা।
আজ ২৩ মে ২০১৯ সকাল ৮.১৫ মিনিটে মাউন্ট এভারেস্টের চূড়ায় পদার্পণ করেন। ৮,৮৪৮ মিটার শৃঙ্গে আরোহণের পথ মোটেই সহজ নয়। কিন্তু নিজের অসুস্থতা এবং প্রাকৃতিক কিছু বাধা কাটিয়েও গোপাল শৃঙ্গে পৌঁছে বিশ্বে এক অসামান্য নজির গড়লেন। ২০১৫ সালেও এভারেস্ট অভিযানে গিয়েছিলেন গোপাল। কিন্তু তাতে বাদ সাধে ভূমিকম্প।
প্রাক্তন এই জাতীয় ফুটবল খেলোয়াড় এবং ব্যতিক্রমী পর্বতারোহীর মূল উদ্দেশ্য সব ক্ষেত্রে সচেতনতা বাড়িয়ে তোলা। দেশবিদেশ এবং ধনী দরিদ্র নির্বিশেষে সবারই এইচআইভি রোগটিকে কেন্দ্র করে নেতিবাচক সংস্কার ভুলে স্বাস্থ্যগত দিক থেকে সচেতন হওয়া প্রয়োজন বলেও মনে করেন তিনি। বেসক্যাম্প থেকে জ্ঞানেন্দ্র শ্রেষ্ঠা খবরটি জানানোর পর থেকেই শোরগোল পড়ে যায় পর্বতারোহীমহলে। বিভিন্ন ট্রেকিং ক্যাম্পের সদস্যরা সোশ্যাল সাইটগুলোয় অভিনন্দন জানাতে থাকেন।
গোপাল শ্রেষ্ঠা সফলভাবে থোরঙ্গ লা পাস (৫,৪১৭ মিটার) আরোহণ করেন ২০১৩ সালে। ২০১৪ সালে আইল্যান্ড শৃঙ্গ (৬,১৮৯ মিটার) এবং খাঙ্গ কার্পো (৬,৬৪৬ মিটার) আরোহণ করেন ২০১৬ তে। রোগ যে বাস্তবেই কোনও বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না ইচ্ছাশক্তির কাছে তাও প্রমাণ করলেন এই নেপালবাসী।