নিউজপোল ডেস্ক: গাঁজার উৎপত্তি ভারতে বলেই ধরা হয়। স্বয়ং দেবাদিদেব মহাদেব গঞ্জিকা সেবন করতেন বলে মতবাদ প্রচলিত ভারত তথা সারা দুনিয়ায়। এই নেশাকে ‘বাবার প্রসাদ’ বলে মনে করেন কত গাঁজাভক্ত। এখন অবশ্য, শুধু ভারত নয়, এশিয়া এবং আফ্রিকার বেশ কিছু দেশে চাষ হয় ক্যানাবিস অর্থাৎ গাঁজার। যেহেতু এই গাছের পাতা সেভাবে জীবাশ্মে পরিণত হতে সক্ষম নয়, তাই ঠিক কত বছর আগে তার উৎপত্তি তা নির্ধারণ করতে সক্ষম হচ্ছিলেন না গবেষকরা। সম্প্রতি আমেরিকার ভারমন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক এশিয়া মহাদেশ থেকে পাওয়া ১৫৫টি গাঁজার পরাগ জীবাশ্ম নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা শুরু করেন। ফলাফল দেখে তাঁরা দাবি করছেন, প্রায় দু’ কোটি ৮০ লক্ষ বছর আগে উৎপত্তি গাঁজার।

শুধু তাই নয়, সর্বপ্রথম তিব্বত মালভূমির কিংঘাই হ্রদ অঞ্চলে জন্ম হয়েছিল গাঁজা গাছের। এর মানে এই নয় যে গাঁজা বা আফিমের সঙ্গে ভারতের যোগ ছিন্ন হয়ে গেছে। এক সময়ে ভারতের টেক্টনিক প্লেট এবং এশিয়ার মূল ভূখণ্ডের টেক্টনিক প্লেট আলাদা ছিল। প্রায় ৬ কোটি বছর আগে সুমাত্রা প্লেটের সঙ্গে ধাক্কা লাগে ভারতীয় প্লেটের। এরপর সাড়ে তিন কোটি বছর আগে ধাক্কা লেগে সংযুক্ত হয় ভারত ও তিব্বতের প্লেট। এই মহাদেশীয় মিলনের ফলে উদ্ভিদ-বৈচিত্রের আদান প্রদান ঘটতে থাকে। সেই সময়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে, বিশেষ করে উত্তরে হিমালয় পর্বত সন্নিবিষ্ট অঞ্চলে গাঁজা গাছ জন্মাতে থাকে। আর তার পরেরটা তো অন্য ইতিহাস।