নিউজপোল ডেস্ক: যত্রতত্র নোংরা আবর্জনা ফেলার ব্যাপারে আমরা একদমই সচেতন নই। কলার খোসা, চিপসের প্যাকেট, সিগারেটের শেষাংশ যেখানে খুশি ছুড়ে ফেলি। ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার এই কনস্টেবলের মতো কড়া পুলিশকর্মী এ দেশে থাকলে নির্ঘাত আমরা শুধরে যেতাম। ৮ জুন ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার রাজধানী ভিক্টোরিয়ার হাইওয়েতে নিজের ফোর্ড মাস্ট্যাং গাড়ি থেকে সিগারেটের জ্বলন্ত টুকরো ছুড়ে পালাচ্ছিল এক ২১ বছরের যুবক। বিষয়টা চোখ এড়ায়নি চিফ কনস্টেবল ডেল ম্যানাকের। পিছু ধাওয়া করে ওই যুবককে পাকড়াও করেন তিনি। জরিমানা করেন ৫৭৫ কানাডিয়ান ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় যার মূল্য ৩৯,৯০০ টাকা। জরিমানার যে চালান কাটেন তিনি তার ছবি টুইটারে পোস্ট করে লেখেন, ‘গাড়ির জানালা থেকে জ্বলন্ত সিগারেট না ছোড়ার ৫৭৫টি কারণ।’

৫৭৫ ডলার জরিমানার বিষয়টি মজা করে কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন ডেল ম্যানাক তা বলাই বাহুল্য। টুইটার থেকে আরও জানা যাচ্ছে, কেন সিগারেট বাইরে ফেলেছেন জিজ্ঞাসা করায় যুবকটি বলেন, ‘আমি চাই না আমার গাড়িতে আগুন ধরে যাক।’ ম্যানাক সঙ্গে সঙ্গে সমুচিত জবাব দিয়েছেন, ‘তাহলে গাড়ির ভেতর ধূমপান করবেন না।’ ওই যুবকের নামে ওয়াইল্ডফায়ার অ্যাক্টে জরিমানা কাটেন তিনি। এরকম কড়া ব্যবস্থা আমাদের দেশে নেওয়া হলে যত্রতত্র পানের পিক, খাবারের প্যাকেট, জলের বোতল ফেলার ঘটনা অনেক কমে যেত তাতে সন্দেহ নেই। আদৌ কি শক্ত হাতে ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন? প্রশ্ন সেটাই।