রাজ্য সরকারের কন্যাশ্রী প্রকল্পের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হচ্ছেন রুমানা সুলতানা। এ বারের উচ্চমাধ্যমিকে রুমানা সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছেন।

 

৫০০-র মধ্যে তিনি পেয়েছেন ৪৯৯। শুক্রবার বহরমপুরের কালেক্টরেট কনফারেন্স হলে রুমানা মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসনের তরফে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

 

সংবর্ধনার কারণে সকালেই জেলাসদরে পরিবারের অন্যদের সঙ্গে বহরমপুরে এসেছিলেন রুমানা।

 

তাঁকে সংবর্ধিত করে জেলাশাসক বলেন, ‘মুর্শিদাবাদের নাম উজ্জ্বল করে উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হয়েছেন এক কন্যাশ্রী, যোদ্ধা ছাত্রী। তাঁকে কন্যাশ্রীর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডার করা হবে।’

 

কন্যাশ্রীর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবে তাঁর নাম জেলাশাসক ঘোষণায় খুশি রুমানা।

 

তিনি বলেন, ‘আমার এই সাফল্যে জেলার অন্য ছাত্রীরাও উৎসাহ পাক, এটাই চাই।’ আগামী দিনে বিজ্ঞানী হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন তিনি।

রাজ্য সরকারের কন্যাশ্রী প্রকল্পের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হচ্ছেন রুমানা সুলতানা। এ বারের উচ্চমাধ্যমিকে রুমানা সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছেন।

৫০০-র মধ্যে তিনি পেয়েছেন ৪৯৯। শুক্রবার বহরমপুরের কালেক্টরেট কনফারেন্স হলে রুমানা মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসনের তরফে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

সংবর্ধনার কারণে সকালেই জেলাসদরে পরিবারের অন্যদের সঙ্গে বহরমপুরে এসেছিলেন রুমানা।

তাঁকে সংবর্ধিত করে জেলাশাসক বলেন, ‘মুর্শিদাবাদের নাম উজ্জ্বল করে উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হয়েছেন এক কন্যাশ্রী, যোদ্ধা ছাত্রী। তাঁকে কন্যাশ্রীর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডার করা হবে।’

কন্যাশ্রীর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবে তাঁর নাম জেলাশাসক ঘোষণায় খুশি রুমানা।

তিনি বলেন, ‘আমার এই সাফল্যে জেলার অন্য ছাত্রীরাও উৎসাহ পাক, এটাই চাই।’ আগামী দিনে বিজ্ঞানী হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন তিনি।