নিউজপোল ডেস্কঃ সময় কাটাতে বাবা ও মেয়ে লুডো খেলতে বসে। আর এই খেলাকে কেন্দ্র করেই বাবা-মেয়ের সম্পর্কে যে চিরদিনের মতো চির ধরবে, তা কে জানত! লুডো খেলতে বসে বাবা ধোঁকা দিয়েছে, এই অভিযোগ নিয়ে সোজা আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন মধ্যপ্রদেশের বছর চব্বিশের এক তরুণী।

সূত্রের খবর, কিছুদিন আগে বাড়িতে বাবা ও ভাইবোনদের সঙ্গে বসে লুডো খেলছিলেন ওই তরুণী। সেই সময় তাঁর বাবা মেয়েটির একটি পাকা ঘুঁটি কেটে দেন। বাবা যে তাঁর ঘুঁটি কাটতে পারে, সেটা ওই তরুণী বিশ্বাসই করতে পারেননি। ‘বিশ্বাস ভঙ্গ’ হওয়ায় ভোপাল ফ্যামিলি কোর্টের দ্বারস্থ হয় মেয়েটি। আদালতের এক মহিলা আধিকারিক সরিতা জানিয়েছেন, “মেয়েটির কান্ড দেখে আমি অবাক। তরুণী জানিয়েছে, সে তার বাবার প্রতি সমস্ত শ্রদ্ধা হারিয়েছে। যে বাবা তাঁকে পৃথিবীর সমস্ত সুখ দেওয়ার কথা দিয়েছিলেন, তিনি মেয়েকে হারিয়ে দেওয়ার জন্য এমন কাজ করতে পারেন, তা মেয়েটি ভাবতেই পারছে না।”

তরুণী তাঁর বাবার সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করার কথাও জানিয়েছে। মেয়েটির কথায়, “বাবা সবসময় বলত, আমাকে সুখী করতে সব করতে পারে। ওই দিন আমার আনন্দের জন্য বাবা উচিৎ ছিল গেমটা হেরে যাওয়া। কিন্তু বাবা তা করেনি। আমার সমস্ত বিশ্বাব ভেঙে দিয়েছে বাবা”।

তরুণীর কাণ্ড দেখে অবাক আদালতের সকলে। ঘটনা প্রসঙ্গে আদালতের কাউন্সেলর সরিতা জানিয়েছেন, মেয়েটির সঙ্গে চারদফার কাউন্সিলিং সেশন করা হবে। তবে এই প্রথম নয়। এর আগে এই লুডো খেলায় হেরে গিয়ে প্রেমিক-প্রেমিকা সম্পর্ক ভাঙা, স্বামী স্ত্রীকে মারধর এমনকী খুনের মতো ঘটনাও ঘটেছে। তবে এভাবে সোজা আদালতে যাওয়ার ঘটনা একেবারে নতুন বলেই দাবি ওয়াকিবহাল মহলের।