নিউজপোল ডেস্কঃ সামনেই পুজো! মেয়েদের কাছে অষ্টমীর সকালটা একটু স্পেশাল। আর এই অষ্টমীর সকালে লাল পেড়ে সাদা শাড়ি। কোমড়ে কোমড়বন্ধনী, কপালে সিঁদুরের টিপ, চোখে কালো কাজল- এর সঙ্গে নাকে নাকছাবি না থাকলে চলে? পুরোপুরি বঙ্গ ললনা হয়ে উঠতে চাইলে নাকছাবি মাস্ট। নথ বা নাকছবি হল এমন একটি ফ্যাশন অ্যাকসেসরি, যা চট করে পাল্টে দিতে পারে আপনার লুকটাই। শাড়ি ছাড়াও আজকাল ওয়েস্টার্ন পোশাকের সঙ্গে নাকছাবি পড়ার ফ্যাশন উঠেছে। সে যাই হোক, দেখে নিন অষ্টমী অঞ্জলি কিংবা দশমীর সিঁদুর খেলার জন্য কেমন নাকছাবি বেছে নেবেন।

১. সনাতনী ডিজাইনের নাকছাবি
এই ধরনের ডিজাইন সোনালি রংয়ের হলেই ভালো। সোনার তৈরিও হতে পারে, আবার ইমিটেশন নাকছাবিও হতে পারে। তবে ট্র্যাডিশনাল সাজ, মানে, শাড়ি কিংবা সালোয়ার-কামিজের সঙ্গেই এরকম নাকছাবি মানাবে। সঙ্গে বাকি গয়নাও পরতে হবে মানানসই করে।


২. সনাতনী টানা নথ
আপনার সাজে সাবেকি ছোঁয়া দিতে চাইলে বেছে নিন সনাতনী টানা নথ। পুজোর দিন অধিকাংশ বনেদি বাড়ির মহিলারাই এমন টানা নথ পরে থাকেন। পুজোর দিন সকালের সাজের জন্য এটা এক্কেবারে পারফেক্ট।
৩. মারাঠী স্টাইলের নথ
এটি মূলত মারাঠী মহিলারা পরলেও আজকাল ফ্যাশনে দারুণ ইন এই নথ! সাধারণত সোনা, মুক্তো ও লাল-সবুজ পাথর দিয়ে তৈরি হয় এই সাবেকি নথ। নাক বেঁধানো না হলে ক্ষতি নেই। ফলস নথ পাওয়া যায়।

৪. অক্সিডাইজড নাকছাবি
হ্যান্ডলুম পরার ইচ্ছে থাকলে পরুন এমন নাকছাবির ডিজাইন। জিঙ্ক অক্সাইড, জার্মান সিলভার কিংবা রুপোর তৈরি নানা রকমের, নানা সাইজে পাওয়া যায় এই ধরনের নাকছাবি। একেবারে ছোট্ট, পাথরবসানো, মিনে করা, অক্সিডাইজডের ডিজাইন করা। আপনার পছন্দ মতো কিনে নিন।