নিউজপোল ডেস্কঃ কিছুদিন আগে ইরানের উপর পরমাণু ও ক্ষেপণাস্ত্র সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল আমেরিকা। এবার কিউবার উপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা জারি করল ট্রাম্প প্রশাসন।

মার্কিন প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার হোয়াইট হাউসে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে কিউবা (Cuba) ‘র উপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা জারি করার কথা ঘোষণা করেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিউবা থেকে সিগারেট ও মদ আমদানি ঠেকাতে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন তিনি। আগামী ৩ নভেম্বর ফ্লোরিডায় নির্বাচন হতে চলেছে। তার আগেই নিষেধাজ্ঞা জারি করলেন ট্রাম্প। 

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, “কমিউনিস্ট নির্যাতনের বিরুদ্ধে আমাদের লাগাতার লড়াই চলছে। এর অঙ্গ হিসেবে আমি ঘোষণা করছি, আমাদের অর্থমন্ত্রক কিউবায় সফরকারী মার্কিন নাগরিকদের সেখানকার সরকারি হোটেলে থাকার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করবে। এর পাশাপাশি আমাদের দেশের ব্যবসায়ীদের কিউবা থেকে সিগারেট ও রাম (মদ) আমদানি করতেও নিষেধ করব। আমরা এই পদক্ষেপের মাধ্যমে কিউবার কমিউনিস্ট সরকারের সঙ্গে অসহযোগিতা করতে চাই। এর ফলে মার্কিন ডলার সোজাসুজি কিউবার জনগণের পকেটে ঢুকবে”।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নকে চাপে রাখতে ১৯৬২ সালে তুরস্কে ক্ষেপণাস্ত্র মজুত করেছিল আমেরিকা। পালটা জবাবে মস্কো আমেরিকাকে লক্ষ্য করে হামলার জন্য কিউবায় ক্ষেপণাস্ত্র বসিয়ে দিয়েছিল। এ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে দুই মহাশক্তিধর দেশের মধ্যে টানাপোড়ন চলে।  পরমাণু যুদ্ধ লাগার মতো পরিস্থিতিও তৈরি হয়েছিল। এরপরই কিউবার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে আমেরিকা।

বারাব ওবামা আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদে বসার পর কিউবা সফর করে সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেন। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, কিউবান-আমেরিকান অধ্যুষিত ফ্লোরিডায় ৩ নভেম্বর ভোট। তার আগে এই ঘোষণা করে ওই এলাকার মানুষদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।