নিউজপোল ডেস্কঃ আন্দোলনকারী কৃষকদের সমর্থন করে কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমারকে চিঠি দিলেন সমাজ কর্মী আন্না হাজারে। বৃহস্পতিবার তিনি বলেছিলেন কৃষকদের দাবী মানা না হলে তিনি কৃষকদের সমর্থনে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে গণ-আন্দোলন শুরু করবেন। কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রীকে পাঠানো  চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেন কৃষকদের আন্দোলনের কথা এবং আর্জি করেছেন  নতুন কৃষি আইন বাতিলের জন্য। আর সেই দাবী পূরণ না হলে তাঁর জন্য অনশন আন্দোলন করবেন বলে চিঠিতে জানিয়েছেন। হাজারে আরও জানিয়েছেন  “এই আন্দোলন কখন, কোথায় এবং কোথায় হবে, তার বিশদ আমরা শীঘ্রই ঘোষণা করব”।

কেন্দ্রের তিনটি কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে কৃষক সংস্থাগুলি কর্তৃক আহবান করা ভারত বন্ধের সমর্থনে ৮ ডিসেম্বর হাজারে উপবাস করেছিলেন। তার আগেও হাজারে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন সময় এলে তিনি আবার আন্দোলন পথে হাটবেন। তাই চিঠিতে তিনি পূর্বের আন্দোলনে করা দাবী এবং সরকারের দেওয়া প্রতিশ্রুতির কথা উল্লেখ করেছেন।

কৃষিমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে একটি চিঠিতে হাজারে বলেছিলেন যে, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, রালেগান সিদ্ধিতে তত্কালীন কৃষিমন্ত্রী রাধা মোহন সিং, তত্কালীন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফাদনবীস এবং অন্যান্য মন্ত্রীরা কৃষকদের ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেছিলেন। কেন্দ্রীয় সরকার তখন উত্থাপিত বিষয়ে লিখিত আশ্বাস দিয়েছিল। নির্বাচন কমিশনের মতো কেন্দ্রীয় কৃষি মূল্য কমিশনকে স্বায়ত্তশাসন প্রদান, স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়ন, কৃষিপণ্যের উত্পাদন ব্যয় এবং মূল্য নির্ধারণের মতো অনেক বিষয় আলোচিত হয়েছিল। এই সমস্ত বিষয়ে যথাযথ সিদ্ধান্ত নিতে একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন কমিটি নিয়োগ করা হবে বলে জানানো হয়েছিল। সরকার পক্ষ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল যে কমিটি  ৩০অক্টোবর, ২০১৯ এর মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে এবং  আরও পদক্ষেপ নেবে। কিন্তু এখনও অবধি তার কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। দেশে কৃষকদের গুরুত্বপূর্ণ অবদান সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে আন্না হাজারে বলেছিলেন, “কৃষিকাজের উপর নির্ভরশীল কোনও দেশের কৃষকের বিরুদ্ধে কোন আইন অনুমোদিত হতে পারে না। সরকার যদি তা করে থাকে তবে তার বিরুদ্ধে আন্দোলন করা গুরুত্বপূর্ণ”।

দেশজুড়ে কৃষক আন্দোলন ইস্যু নিয়ে এখনও পর্যন্ত সরকার ও কৃষক সংস্থার মধ্যে পাঁচ দফায় আলোচনার বৈঠক হয়েছে, তবে সব বৈঠকই সিদ্ধান্তহীন এবং অচলাবস্থায় থেকে গেছে। এখন কৃষক সংগঠনগুলি আজ থেকে দেশব্যাপী আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছে।