তামিলনাড়ুর কাঞ্চিপুরমের কাছে একটি সুপ্রাচীন শিবমন্দিরে পাওয়া গেল রাশি রাশি সোনা। মন্দির সংস্কারের কাজের সময় এত সোনা পাওয়া গেছে। গ্রামে সে খবর ছড়াতেই ভিড় উপচে পড়ে প্রাচীন সোনা দেখার জন্য। সরকারি আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে এসে সমস্ত সোনা বাজেয়াপ্ত করেন। স্থানীয়রা বাজেয়াপ্ত করার বিরোধিতা করেন। আধিকারিকরা সোনাগুলো নিজেদের হেফাজতে নিয়ে যেতে অনড় থাকেন। এরপরে আধিকারিকরা প্রচুর সংখ্যাক পুলিশ গ্রামে মোতায়েন করেন এবং ওই গুপ্তধন বাজেয়াপ্ত করেন সিল করা বাক্সে তা নিয়ে যান।

গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, ওই মন্দির চোল আমলের বলে মনে করা হয়। এক স্থানীয় বাসিন্দা জানিয়েছেন, সিঁড়ির নিয়ে সোনা পবিত্র চিহ্ন হিসাবে এতবছর মন্দিরে ছিল, তাই ওই সোনা যেহেতু মন্দিরের, তাই কর্তৃপক্ষের তা বাজেয়াপ্ত করার কোনও অধিকার নেই।

রাজস্ব মহকুমা আধিকারিক বৈদ্য বলেছেন, ওগুলিকে দেখে সোনাই মনে হচ্ছে। পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, প্রাপ্ত সামগ্রীর ওজন প্রায় ৫৬৫ গ্রাম। মন্দিরকে তা ফিরিয়ে দেওয়া হবে কিনা, তা এখনও ঠিক হয়নি। রাজস্য আধিকারিকরা সেটি ঠিক করবেন।