অস্তিত্বের জন্য সংগ্রাম আমাদের প্রত্যেকেই করতে হয়।এক শ্রেনীর মানুষের হাতে থাকে প্রবল প্রতিপত্তি। আর এক শ্রেণীর মানুষ বেঁচে থাকার জন্য সংগ্রাম করে চলেন অবিরত। এরকমই এক সংগ্রামী হলেন হরিপদ দাস। হরিপদবাবু চন্দননগরের মানকুন্ডুতে থাকেন। চন্দননগর স্ট্যান্ডের ফুটপাতে ছোট ছোট সফট টয়েস বিক্রি করে নিজের সংসার জীবন অতিবাহিত করেন।জিনিসগুলির দামও আহামরি বিশাল নয়,মাত্র ২০ টাকা। বয়সের চাপের ভারাক্রান্তে এখন হাঁক পেরে নিজের ব্যবসা চালাতে তিনি অক্ষম। লকডাউনে তার সংসার বন্ধ হওয়ার উপক্রম, তিনি জনে জনে হাত না পেতে পরিশ্রম ও ব্যবসার মাধ্যমে উপার্জন করে থাকেন। আপনিও যদি চন্দননগরের রাস্তায় এনাকে পুতুল বিক্রি করতে দেখেন,সামান্য কিছু অর্থের বিনিময়ে কিনে ফেলুন।আপনারও যেমন পুতুলগুলো ভালো লাগবে তেমনিই একটা মধ্যবিত্ত সংসার এই লকডাউনের হাত থেকে বেঁচে যাবে।