নিজেকে সামলান, বাবা-মাকেও

306

বাবা–মা আর প্রিয়জন। এই দুইয়ের মাঝে পড়ে চিঁড়েচ্যাপ্টা!‌ নতুন কিছু নয়। ঘর ঘরের কাহন। জেনারেশন গ্যাপ অন্যতম কারণ। তাছাড়াও রয়েছে কিছু জটিল মনস্তত্ত্ব। এসবের মাঝে পড়ে আপনার নাভিশ্বাস উঠছে রোজ। সামলাতে হবে কিন্তু আপনাকেই। কীভাবে?‌ জেনে নিন—

দায়িত্বশীল হোন— সবার আগে আপনাকে দায়িত্বশীল হতে হবে। আপনাকে বুঝতে হবে মা-বাবার প্রকৃতি। আপনি তাঁদের ভালোভাবেই চেনেন। সেই বুঝে আপনাকে সামলাতে হবে পুরো বিষয়টা। আপনার পরিবার রক্ষণশীল হলে মন খুলে কথা বলা চাপ। সেক্ষেত্রে কিছু বিষয় এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। আর বাবা-মায়ের সাথে সম্পর্ক সহজ ও স্বাভাবিক হলে আলোচনা করুন।স্বাবলম্বী হোন— যতই বলি, বাবা-মাকে এড়িয়ে যাওয়ার কাজটা কিন্তু সহজ নয়। আর যাই হোক, তাঁরা আমাদের খারাপ চান না। তাই তাঁদের অবহেলা করাও ঠিক নয়। তার চেয়ে বরং নিজের জায়গা তৈরি করুন। আপনি স্বাবলম্বী হলে, আপনার বিচার-বুদ্ধি করার ক্ষমতা থাকলে বাবা–মা কেউই আপনার বিরুদ্ধে যাবেন না। সেক্ষেত্রে আপনার প্রিয়জনের ইচ্ছার মর্যাদা দিতেও তাঁরা বাধ্য হবেন।ধৈর্য ধরুন— বাবা-মায়ের অনেক কথাই অনেক সময় শুনতে ভালো লাগে না। মতের অমিল হয়। এসব ক্ষেত্রে ধৈর্য ধরাই ভালো। বাড়াবাড়ি হলে তাঁদের স্পষ্ট ভাষায় বুঝিয়ে দিন, যে আপনি এসব অপছন্দ করছেন। আপনি বা আপনার প্রিয়জন কী চাইছেন, সেটাও মাথা ঠান্ডা রেখে বলা খুব জরুরি।