ভিক্টোরিয়ায় নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনির প্রতিবাদে কোনো বক্তব্য না রেখে মঞ্চ থেকে নেমে যান মুখ্যমন্ত্রী। এরপর বঙ্গ রাজনীতিতে শাসক ও বিরোধী দলের নেতারা সমালোচনা ও পাল্টা সমালোচনা করেন। উত্তপ্ত হয় বঙ্গ রাজনীতি। সেই আগুনেই এবার ঘি ঢাললেন বিজেপি নেতা তজিন্দার সিং বাগ্গা। জানালেন, মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির ঠিকানায় এবার এক লক্ষ ‘জয় শ্রীরাম’ লেখা পোস্টকার্ড পাঠানো হবে।

শনিবার নেতাজির ১২৫ তম জন্মজয়ন্তীতে কলকাতায় আসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। নেতাজি ভবন থেকে ন্যাশনাল লাইব্রেরি হয়ে ভিক্টোরিয়ার অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। আমন্ত্রিত ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। সেই মঞ্চেই মুখ্যমন্ত্রীকে যখন তাঁর বক্তব্য বলার জন্য ডাকা হয়, তখনই দর্শকাসন থেকে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দেন কয়েকজন দর্শক। মুখ্যমন্ত্রী বিরক্তি প্রকাশ করে মঞ্চে উঠে ঘটনার প্রতিবাদস্বরূপ নিজের বক্তব্য না রেখেই মঞ্চ থেকে নেমে যান। নেমে যাওয়ার আগে বিরক্তি প্রকাশ করে বলেন , “এটা সরকারি অনুষ্ঠান। কোনও রাজনৈতিক সভা নয়। আমন্ত্রণ জানিয়ে বেইজ্জত করা উচিত নয়। তাই আমি কোনও বক্তব্য রাখব না। তবে কলকাতায় এই অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য আমি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।”

‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনিতে মুখ্যমন্ত্রীর এমন প্রতিক্রিয়াতেই এরপর শুরু হয় রাজনৈতিক তরজা। নেতাজির জন্মদিনে এহেন ধ্বনি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অপমান করা হয়েছে এবং অনুষ্ঠানটিকে বিকৃত করা হয়েছে বলেই সুর চড়ান তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রীরা। বিজেপির পালটা দাবি, ‘ রামের নামে স্লোগান দেওয়া অন্যায় নয়, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতার এমন প্রতিক্রিয়া উচিৎ হয়নি।’ হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ কটাক্ষ করে বলেন, “ষাঁড় যেমন লাল রং দেখলে রেগে যায়, জয় শ্রীরাম ধ্বনি শুনলেও মুখ্যমন্ত্রীর একই প্রতিক্রিয়া হয়।” এই বক্তব্যের পরেই আরো একটা বিতর্কিত মন্তব্য করলেন বিজেপি নেতা তজিন্দর সিং বাগ্গা। টুইটারে লিখলেন, “দিদি, আপনি জয় শ্রীরাম শুনলেই কেন মেজাজ হারান? আপনার কাছে জয় শ্রীরাম লেখা এক লক্ষ পোস্ট কার্ড পাঠানো হবে।”