আগামীকাল রাজ্যে চতুর্থ দফা নির্বাচনে পাঁচটি জেলা,44 টি আসনে নির্বাচন হবে,প্রথম তিন দফার অশান্তির পর4 নির্বাচনে নির্বাচন করাটা নির্বাচন কমিশনের কাছে এখন খুব বড় চ্যালেঞ্জের কোন ছোট ঝুঁকি না নিয়ে নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে 793 কোম্পানি বাহিনী নিয়ে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন করবে তারা নির্বাচনে বাড়তি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে হাওড়া এবং কোচবিহার জেলা কে হাওড়াতে মোতায়েন থাকবে 103 কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী তার পাশাপাশি কোচবিহারের জন্য রাখা হয়েছে 188 কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী আলিপুরদুয়ারে রাখা হয়েছে 99 কোম্পানি তার পাশাপাশি জলপাইগুড়িতে রাখা হয়েছে 6 কম্পানি হাওড়ার পাশাপাশি হুগলী হুগলি কেউ দেয়া হয়েছে বাড়তি সর্তকতা হুগলি গ্রামীনে থাকছে 91 কোম্পানিকেন্দ্রীয় বাহিনী চন্দননগরে রাখা হয়েছে 84 কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী পাশাপাশি সমস্ত জেলা বাদে কলকাতা লাগোয়া তে রাখা হয়েছে 101 কম্পানি এই বিষয়ে রাজনৈতিকবিধ দের ধারণা পাঁচ জেলার মধ্যে হাওড়া জেলাতে 103 কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখার পরও নির্বাচন করার জন্য ডিজাবে কলকাতা লাগোয়া এলাকায় 101 কোম্পানি বাহিনীকে মজুদ রাখা হয়েছে এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ধারণা রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম থেকে তৃতীয় দফা নির্বাচন পর্যন্ত অশান্তির ঘটনা কিন্তু লেগেছিল বাদ যায়নি নন্দীগ্রামের মত হেভিওয়েট নির্বাচন কেন্দ্র ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা করার পরও বিক্ষিপ্ত ঘটনা প্রত্যেকটা নির্বাচনের প্রত্যেকটা দফাতেই ঘটেছে ঘটনাতে আক্রমণ হতে বাদ যায়নি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা প্রার্থীও আরামবাগে নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী পাপিয়া অধিকারী এবং তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা মন্ডল এর উপর আক্রমণ সজাক করেছে নির্বাচন কমিশনকে তাই চতুর্থ দফা নির্বাচনে নির্বাচনেনির্বাচন কমিশনের কাছে খুব বড় চ্যালেঞ্জ সুষ্ঠু নির্বাচন করা