নিউজপোল ডেস্ক: সোশ্যাল মিডিয়ার রমরমার দিনে যে শব্দটি প্রায়ই শোনা যায় তা হল ট্রোল। নানাবিধ কারণে সেলিব্রিটিদের ট্রোল করা এখন আমজনতার আমোদের উপকরণ হয়ে উঠেছে। ট্রোল করতে করতে সীমা ছাড়িয়ে কুরুচিকর, আপত্তিকর কথা বলাও এখন ট্রেন্ড। এমনকী এ প্রসঙ্গে ধর্ম টেনে আনতে পিছপা হন না নেটিজেনরা। স্বল্প পোশাক পরিহিত ছবি পোস্ট করে সাধারণের কটূক্তির শিকার হয়েছেন এমন অভিনেত্রীর সংখ্যা কম নয়। মুসলিম অভিনেত্রীদের তো এ কারণে ধর্ম ত্যাগ করার হুমকিও শুনতে হয়েছে। এই প্রতিবেদনে রইল তেমনই কয়েকজনের কথা।

সারা খান: ‘বিদায়ী’ নামক এক টিভি সিরিয়াল থেকে বিখ্যাত হয়েছিলেন সারা। ইনস্টাগ্রামে রুপোলি বিকিনিতে ছবি পোস্ট করে বিতর্কের মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে। অশ্লীল বাক্য তো বটেই, কেউ কেউ বলেছেন, মনে হয় আপনি ভুলে গেছেন যে আপনি মুসলিম। আপনার ইসলাম ছেড়ে দেওয়া উচিত কারণ ইসলামে এমন পোশাক পরা নিষিদ্ধ।

আরশি খান: বিগ বস ১১তে অংশ নেওয়া আরশিও একই রকম মন্তব্যের সম্মুখীন হয়েছে। তাঁকে বলা হয়েছে, আপনি এবং আপনার মুসলমানত্বের ওপর ধিক্কার।

অঞ্জুম ফকির: টিভি সিরিয়ালের অভিনেত্রী অঞ্জুম থাইল্যান্ড ঘুরতে গিয়ে বিকিনি পরিহিত ছবি পোস্ট করেছিলেন সোশ্যাল সাইটে। নজরে পড়ে যান কট্টরপন্থী মুসলিমদের। তাঁকে বলা হয়, আপনার মতো মেয়েদের কোনও অধিকার নেই নিজেকে মুসলিম হিসেবে পরিচয় দেওয়ার।

হিনা খান: ইনিও টিভি পর্দার অভিনেত্রী। রমজান মাস চলাকালীন স্বল্পবসনা ছবি পোস্ট করেছিলেন ইনস্টাগ্রামে। তাঁকে ‘নির্লজ্জ’ আখ্যা দিয়ে বলা হয়েছিল, পবিত্র রমজান মাসে এমন ছবি পোস্ট করায় হিনার নরকেও ঠাঁই হবে না।

শমা সিকন্দর: ইনি তো প্রায়ই নেটিজেনদের ট্রোলের শিকার হন কারণ, প্রায়ই ছোট পোশাকের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন শমা। তাঁকে বলা হয়, কিছু তো সম্মান করো, মুসলিম হয়ে নিজের ধর্মের খেয়াল তো রাখো।