অমর সিং

নিউজপোল ডেস্ক: প্রাক্তন সমাজবাদী পার্টি নেতা তথা রাজ্যসভার সাংসদ অমর সিংয়ের জীবনাবসান। ৬৪ বছর বয়সে সিঙ্গাপুরের হাসপাতালে শনিবার শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই কিডনির সমস্যায ভূগছিলেন অমর সিং। সম্প্রতি অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিঙ্গাপুরের হাসপাতালে আইসিইউতে রাখা হয়েছিল তাঁকে।

মুলায়ম সিংয়ের ঘনিষ্ঠ হওয়ার সুবাদে সমাজবাদী দলের ‘চাণক্য’ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। এরপর অবশ্য পরিস্থিতি বদলে যায়। ২০১০ সালে সপার সব পদ থেকে ইস্তফা দেন অমর সিং। পরে দল বিরোধী কাজের অভিযোগে সমাজবাদী দল অমরকে বহিষ্কার করে । তবে বহিষ্কারের পরও দলের বিরুদ্ধে মুখ খোলেননি এই নেতা। অমর। বরং স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেওযার জন্য সমাজবাদী পার্টির প্রধান মুলায়ম সিং যাদবের প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছিলেন।

১৯৯৬ সালে প্রথম সমাজবাদী দলের হয়ে রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন অমর সিং। এরপর ২০১৬ সালে ফের উত্তরপ্রদেশ থেকে নির্দল হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। সমাজবাদী পার্টির সমর্থনেই রাজ্যসভা ভোটে নির্দল সাংসদ হিসেবে জিতে সংসদে প্রবেশ করার সুযোগ পান ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের পারবাণবিকচুক্তিকে কেন্দ্র করে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ-এ সরকার থেকে বামেরা ২০০৮ সালে সমর্থন প্রত্যাহার করেছিস। ফলে টলমল হযে পড়েছিল মনমোহন সিং সরকার। সেই সময় সরকার টিকিয়ে রাখার ক্ষেত্রে ত্রাতা হযে দাঁড়িযেছিলেন সমাজবাদী দলের নেতা অমর সিং। সমাজবাদী দল ইউপিএ-কে সমর্থন করায় সরকার টিঁকে যায়।

চলতি বছরই অনর সিংয়ের মৃত্য়ু সংবাদ রযে গিয়েছিল। পরে হাসপাতাল থেকে ভিডিও বার্তায় অমর জানিয়েছিলেন, তিনি চিকিৎসাধীন। কেউ যেন গুজবে কান না।

গতকালই টুইট করে স্বাধীনতা সংগ্রামী বাল গঙ্গাধর তিলকের শততম মৃত্যুদিনে শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন অমর সিং। একই সঙ্গে জানান ঈদের শুভেচ্ছাও। কিন্তু, তারপরই এদিন এল তাঁর মৃত্য়ু সংবাদ।

অমর সিংয়ের প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। অমর সিংয়ের সঙ্গে তাঁর বন্ধুত্ব ছিল, এমন কথাই বলেছেন রাজনাথ। শোকপ্রকাশ করেছেন সপা নেতা অখিলেশ যাদবও।