কোভিড-১৯ অতিমারির মধ্যেও তিনি যে নিজের লক্ষ্য থেকে সরে যাননি, তা এ বারের রাজ্য শুটিং চ্যাম্পিয়নশিপে বুঝিয়ে দিয়েছেন আয়ুষি পোদ্দার। ছ’টি ব্যক্তিগত ইভেন্টে নেমে রাজ্য রেকর্ড-সহ পাঁচটি সোনা এবং একটি রুপো জিতে। বঙ্গ শুটিংয়ের অন্যতম প্রতিভা মেহুলি ঘোষকে অবশ্য সন্তুষ্ট থাকতে হল ১০ মিটার এয়ার রাইফেলের ব্যক্তিগত ইভেন্টে রুপো পেয়ে। তবে টিম ইভেন্টে সোনা জেতেন মেহুলি।

বঙ্গ শুটিংয়ের বিস্ময় বালক বলে পরিচিত অভিনব সাউও পিছিয়ে পড়েনি লকডাউন আর কোভিডের ধাক্কায়। জাতীয় শুটিংয়ে সব চেয়ে কম বয়সে সোনা জেতার রেকর্ড গড়া অভিনব রাজ্য শুটিং থেকে জিতেছে চারটি সোনা।

ভদ্রেশ্বরের বুলস আই শুটিং অ্যাকাডেমির ছাত্রী আয়ুষি সোনা জিতেছেন ১০ মিটার এয়ার রাইফেল (সিনিয়র ও জুনিয়র), ৫০ মিটার রাইফেল থ্রি পোজিশন (সিনিয়র ও জুনিয়র) এবং ৫০ মিটার রাইফেল প্রোন (জুনিয়র)। রুপো পেয়েছেন ৫০ মিটার রাইফেল প্রোন (সিনিয়র) ইভেন্টে।

কতটা কঠিন ছিল দীর্ঘদিন অনুশীলনের বাইরে থেকে প্রতিযোগিতায় নামা? সোমবার আয়ুষি বলছিলেন, ‘‘লকডাউনের জন্য আমি ৫০ মিটার থ্রি পোজিশনের অনুশীলন প্রায় করতেই পারিনি। বাড়িতে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলের অনুশীলনটা করেছি। ম্যাচ প্র্যাক্টিস সে ভাবে হচ্ছিল না বলে রাজ্য শুটিংয়ে নেমেছিলাম।’’ পাঁচটা সোনা জেতার পরে নিজের ছন্দ নিয়ে কী বলবেন? আয়ুষির মন্তব্য, ‘‘নিজেকে ১০-এর মধ্যে ৭.৫ দেব। এখনও সেরা ছন্দে পৌছতে পারিনি।’’

আজ, মঙ্গলবার দিল্লি উড়ে যাচ্ছেন আয়ুষি। সেখানে বিশ্বকাপের দল বাছাইয়ের জন্য শেষ দু’টি ট্রায়াল আছে। আয়ুষির বাবা এবং কোচ পঙ্কজ পোদ্দার বলছিলেন, ‘‘আমাদের লক্ষ্য এখন ট্রায়ালে ভাল করে ভারতীয় দলে জায়গা করে নেওয়া।’’