বিধানসভা নির্বাচনের মধ্যেই ত্রিস্তর গ্রাম পঞ্চায়েতে ভাল কাজের সুবাদে কেন্দ্রের স্বীকৃতিলাভ বাংলার। সাতটি জেলার ১১টি গ্রাম পঞ্চায়েতকে ‘জাতীয় পঞ্চায়েত পুরস্কার ২০২১’ দেওয়া হচ্ছে। সামগ্রিকভাবে ভাল কাজ ছাড়াও মোট চারটি ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে। ওই সাতটি জেলা হল বীরভূম, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব বর্ধমান, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা, দার্জিলিং ও আলিপুরদুয়ার। তবে কোভিডের কথা মাথায় রেখে কোনওরকম অনুষ্ঠান ছাড়াই চলতি মাসের ২৪ তারিখ পঞ্চায়েতিরাজ মন্ত্রক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাত দিয়ে পুরস্কারের অর্থমূল্য ওই পঞ্চায়েতগুলিকে ট্রান্সফার করে পরবর্তীকালে যাবতীয় শংসাপত্র পাঠিয়ে দেবে। কেন্দ্রের ওই মন্ত্রক তা রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের প্রধান সচিবকে চিঠি লিখে বিস্তারিত জানিয়ে দিয়েছে।

সাফল্য পাওয়া ওই পঞ্চায়েতের তালিকায় রয়েছে, পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনি, দাসপুর দুই ব্লকের গৌরা, গড়বেতা তিন ব্লকের আমসোলে, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার মগরাহাট এক, কুলপি ব্লকের করনঞ্জলী, পুরুলিয়ার পুঞ্চার লাখরা, দার্জিলিংয়ের ফাঁসিদেওয়ার বিধাননগর ২, আলিপুরদুয়ারের আলিপুরদুয়ার ১ ব্লকের পূর্ব কাঁঠালবাড়ি, মাদারিহাট ব্লকের বীরপাড়া এক, পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রাম ২ ব্লকের সীতাহাটি ও বীরভূম জেলা পরিষদ।

নানাজি দেশমুখ রাষ্ট্রীয় গৌরব গ্রাম সভা পুরস্কার পাচ্ছে পশ্চিম মেদিনীপুরের আমসোলে গ্রাম পঞ্চায়েত। শিশু বান্ধব গ্রাম পঞ্চায়েত পুরস্কার পাচ্ছে পূর্ব বর্ধমানের সীতাহাটি। গ্রাম পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট প্ল্যান অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছে আলিপুরদুয়ারের বীরপাড়া ১। নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়েই এই পুরস্কার ঘোষণা করেছে কেন্দ্র।