নিউজপোল ডেস্ক: জনপ্রিয় টিভি শো বিগ বস বন্ধ হওয়ার মুখে। সলমন খান সঞ্চালিত এই শোয়ের এই বছর ১৩তম সিজন শুরু হয়েছে। কিন্তু ইতিমধ্যেই কট্টর ডানপন্থী রাজনীতিবিদ এবং সংগঠনের তরফ থেকে উঠেছে তীব্র প্রতিবাদ। গাজিয়াবাদের বিজেপি বিধায়ক নন্দকিশোর গুজ্জর এই অনুষ্ঠান বন্ধ করার আবেদন জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন ভারতের তথ্য এবং সম্প্রসার মন্ত্রী প্রকাশ জাভেদকরকে। তাঁর দাবি, এই অনুষ্ঠানে যা দেখানো হচ্ছে সেগুলো ভারতীয় সংস্কৃতির বিরোধী এবং এর ফলে কুপ্রভাব পড়ছে কিশোরকিশোরীদের মনে।

নিজের চিঠিতে গুজ্জর জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সারা বিশ্বের সামনে ভারতকে উচ্চাসনে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন। কিন্তু এই ধরনের অনুষ্ঠান জাতীয় টিভিতে সম্প্রসার করা হচ্ছে, যেগুলো ভারতীয় সংস্কৃতির বিরোধী। এখানে অল্পবয়সী যুগলদের একে অপরের শয্যাসঙ্গী হতে বলা হচ্ছে এবং সেটাই সম্প্রসার করা হচ্ছে।

এর ফলে কিশোরকিশোরী যারা এই সমস্ত অনুষ্ঠান দেখে, তারা ভুল শিক্ষা পাচ্ছে। এই ধরনের অনুষ্ঠান শুধু টিভিতেই নয়, দেখা যায় ইন্টারনেটেও। এই মর্মে টিভিতে সম্প্রসারিত অনুষ্ঠানের ওপর সেন্সর বসানোর কথাও তিনি জানিয়েছেন টিভিতে।

গুজ্জরের পাশাপাশি ব্রাহ্মণ মহাসভাও এই অনুষ্ঠানের বিরোধিতা করে গাজিয়াবাদের জেলাশাসকের কাছে একটি স্মারকলিপি জমা দিয়েছে। উত্তরপ্রদেশের নব নির্মাণ সেনা নামক সংগঠনের সভাপতি অমিত জানি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, যতদিন না ‘বিগ বস’ সম্প্রসার বন্ধ হচ্ছে, ততদিন তিনি কোনও খাদ্যশস্য (চাল অথবা গম দিয়ে তৈরি খাবার) গ্রহণ করবেন না।

যতদিন না কেন্দ্রীয় সরকার এই ‘অশ্লীলতা’ বন্ধ করার জন্য কোনও পদক্ষেপ করবে, ততদিন তিনি শুধু ফল এবং সবজি খেয়েই কাটাবেন। তিনি বরং অত্যন্ত আশ্চর্য এতদিনে আরএসএস, যা কিনা তাঁদের নীতি পুলিশ, এই অনুষ্ঠানের বিরোধিতা না করায়।