ফের নৌকাডুবি ব্রহ্মপুত্রে। ঘটনাটি ঘটেছে অসমের , যােরহাটের মাজুলি এলাকায় , ব্রহ্মপুত্র নদে দুটি নৌকার মধ্যে সংঘর্ষের জেরে একটি নৌকা ডুবে যাওয়ার ঘটনায় বাড়ল মৃতের সংখ্যা ।

 

ঘটনাস্থল থেকে এখনও পর্যন্ত এক শিশু সহ চারজনের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে । সেই মৃতদের মধ্যে আছে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীও । মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে ।

 

এই ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করে প্রয়ােজনীয় সব ধরনের সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদী । বুধবার বিকলে , ব্রহ্মপুত্র নদের , নিমাটি ঘাটের কাছে দুটি নৌকার মধ্যে সংঘর্ষের ফলে ডুবে যায় শতাধিক যাত্রীবাহী নৌকাটি ।

 

ধটনাস্থল থেকে বেশ কয়েকজনকে উদ্ধার করা হলেও এখনও প্রায়  পঞ্চাশ জন এর মত যাত্রী নিখোঁজ বলে জানা জানা গিয়েছে। নিমাটি ঘাট থেকে মা কমলা ‘ নামের নৌকাটি যাত্রা শুরু করার আগেই টিপকাই নামে একটি লঞ্চ – র সঙ্গে ধাক্কা লাগলে সেটি ডুবে যায় ।

 

যােরহাটের ডেপুটি কমিশনার অশােক বর্মণ জানান , ‘ ওই নৌকাডুবির ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৪১ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে । তবে এই ঘটনায় কত জন মারা গিয়েছে সেটা এই মুহূর্তে বলা সম্ভব নয় ‘  । নৌকাটি ডুবে যাওয়ার পরে কয়েকজন সাঁতরে উঠে এলেও অনেকেই নিখোঁজ । হয়ত তারা ভেসে গিয়েছেন এমনটাই অনুমান করা হচ্ছে।  ফলে , এই দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করছেন খােদ অসমের মুখ্যমন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা । তার কথায় , ওই এলাকার প্রশাসনিক আধিকারিকদের তিনি নির্দেশ দিয়েছেন উদ্ধারক দ্রুত করার জন্য । এই উদ্ধারকাজে লাগানাে হয়েছে NDRF এবং SDRE- কে ।

 

 

 

 

 

ঘটনার গুরুত্ব অনুধাবন করে এই দিন প্রধানমন্ত্রী টুইট করে জানান , ‘যাত্রীদের উদ্ধার করার জন্য যাবতীয় চেষ্টা করা হচ্ছে । তাদের সবার নিরাপত্তা এবং সুস্থতাও কামনা করি ‘। এছাড়াও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ্ – ও ফোন করে দুর্ঘটনার বিষয়ে জানতে চেয়ে কেন্দ্রর তরফে সব ধরণের সহযােগিতা করার কথা জানিয়েছেন এমনটাই জানিয়েছেন  অসমের মুখ্যমন্ত্রী ।