বাড়ি থেকে দূরের বিদ্যালয়ে চাকরি হওয়ার দরুন অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন অনেক শিক্ষক – শিক্ষিকাই।

তাই শিক্ষকদের(teachers) যাতে তাঁদের বাড়ির কাছাকাছি বদলি করা যায়,

তার জন্য ‘উৎসশ্রী’ পোর্টাল চালু করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তার পরেও,

বদলি নিয়ে বিক্ষোভের জেরে বিকাশ ভবনের সামনে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার(suicide) চেষ্টা করেন পাঁচ শিক্ষিকা।

তাঁদের অভিযোগ ছিল, বাড়ি থেকে বহু দূরের বিদ্যালয়ে তাঁদের বদলি করেছে রাজ্য সরকার (state government)।

এবার আন্দোলনরত শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিলেন খোদ শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু(Bratya Basu)।

শিক্ষক দিবস উপলক্ষে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর(Bratya Basu) এই বার্তা।

তাঁর বার্তায় গত দশ বছরে শিক্ষাক্ষেত্রে উন্নতির জন্য রাজ্য সরকার যে সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে তার বিস্তারিত তথ্য জনসম্মুখে পেশ করেন শিক্ষামন্ত্রী।

ব্রাত্য বসু জানান, গত দশ বছরে রাজ্য সরকারের অধীনে থাকা 2700টি স্কুলকে মাধ্যমিক স্তর(secondary) থেকে উন্নত করে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে(higher secondary) নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে।

আবার অন্যদিকে, স্কুলছুট ছাত্রছাত্রীদের সংখ্যা হ্রাস পাওয়ার কথাও উল্লেখ করেন ব্রাত্য বসু(Bratya Basu)।

ব্রাত্য বসুর(Bratya Basu) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, 2011 সালে যেখানে মাধ্যমিক স্তরে স্কুলছুট ছাত্রছাত্রীদের হার ছিল 17.48 শতাংশ,

সেখানে, 2021 সালে স্কুলছুট ছাত্রছাত্রীদের হার নেমে এসে দাঁড়িয়েছে 7.4 শতাংশ। এই উন্নতির জন্য রাজ্যের

সরকারি, সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত ও সরকার পোষিত স্কুলগুলির শিক্ষকদের ভূয়সী প্রশংসাও শোনা যায় ব্রাত্য বসুর(Bratya Basu) কথায়।

এছাড়াও ব্রাত্য বসু(Bratya Basu) জানান, এছাড়াও, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের প্রতি মাসে বেতন/ভাতা নিশ্চিত করা হয়েছে।

iOMS পোর্টালের মাধ্যমে সরকারী শিক্ষকদের সব তথ্য কম্পিউটারিজ করা হয়েছে বলেও জানান ব্রাত্য বসু(Bratya Basu)।

পাশাপাশি ‘উৎস্যশ্রী’ পোর্টালের কাজ পরিচালনা করার জন্য কুড়ি জন সরকারি অধিকারিককে নিয়োগ করা হয়েছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু(Bratya Basu)।