নিউজপোল ডেস্ক: প্লাস্টিক পৃথিবীর সবথেকে বড় শত্রু, এ আমরা সবাই জানি। কিন্তু জানেন কি, ক্ষতিসাধনে পিছিয়ে নেই কাচও। প্লাস্টিকের মতো ক্ষতিকর না হলেও, সমস্যা করে কাচও। তাই বিখ্যাত বিয়ার প্রস্তুতকারক সংস্থা কার্লসবার্গ তৈরি করতে চলেছে কাগজজাত বিয়ারের বোতল। গত শুক্রবার জার্মানির কোপেনেহেগেন সি-৪০ ওয়র্ল্ড মেয়র সামিটে এমনটাই জানিয়েছেন কার্লসবার্গ সংস্থা। জানা গেছে, ২০১৫ সাল থেকেই এ নিয়ে ভাবনাচিন্তা করেছে সংস্থাটি। এতদিন ধরে প্যাকেজিং বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে পরামর্শ করে অবশেষে এই কাগজের বোতল বানাতে সক্ষম হয়েহে তারা।

 

কাঠের তন্তু থেকে বানানো এই বোতলের নাম দেওয়া হয়েছে ‘গ্রিন ফাইবার বট্‌ল’। কাচের বোতলের সমস্যা হল, জঙ্গল এলাকায় পড়ে থাকলে বন্য জন্তুদের শরীরে আঘাত লাগতে পারে। এছাড়া ঠিক যেভাবে আতস কাচ দিয়ে আগুন জ্বালানো হয় কাচের ভাঙা অংশের সঙ্গে সূর্যালোকের সংস্পর্শে অরণ্যাঞ্চলে আগুন লেগে দাবানলের সৃষ্টি হতে পারে। তা ছাড়া, প্লাস্টিকের মতো কাচও প্রকৃতিতে মিশে যায় না, থাকে অবিকৃতই। তা রিসাইক্‌ল করতে আগুনে পোড়ানো হয়, যা থেকে ক্ষতিকারক কার্বন মনোক্সাইড উৎপন্ন হয়। এদিকে কাঠের বোতলে পানীয় সংরক্ষণ সম্ভব নয়। তাই বোতলের ভিতরের দেওয়ালে লাগানো হয়েছে রিসাইক্‌ল করা টেলেফথ্যালেট পলিমার ফিল্ম। এ হল রিসাইক্‌ল করা একধরনের সূক্ষ্ণ প্লাস্টিক।

প্রোটোটাইপগুলি বর্তমানে পরীক্ষার পর্যায়ে থাকলেও, কার্লসবার্গ সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, শীঘ্রই বাজারে আসবে কাগজের বোতলে ভরা বিয়ার বোতল। সংস্থাটির আশা, আগামী দিনে ১০০ শতাংশ বায়ো-নির্ভর বোতল বানাতে পারবে তারা। সাধু উদ্যোগ, সন্দেহ নেই।