নিউজপোল ডেস্ক:‌ অঙ্কুরোদ্গম আগেই ঘটেছে। এবার চাঁদের বুকে প্রাণী পাঠাতে চায় চীন। সেখানে তারা জীবনধারণ করবে, এটাই ইচ্ছা চীনের বিজ্ঞানীদের। এজন্য তাঁরা বেছেছেন কচ্ছপকে।
২০১৯ সালের ৩ জানুয়ারি চাঁদের বিপরীত পৃষ্ঠে নেমেছিল চীনের চ্যাংই–৪ মহাকাশ যান। তার মাধ্যমেই চাঁদের বুকে অঙ্কুরোদ্গম ঘটেছিল একটি তুলোর বীজের। বীজটি থেকে দু’‌টি পাতা বেরিয়েছিল। এর আগে কোনও দেশ চাঁদের বুকে প্রাণের জন্ম দিতে পারেনি। সেক্ষেত্রে চীন এই কৃতিত্বের প্রথম অধিকারী। এবার আরও একধাপ এগোতে চায় চীন। উদ্ভিদের জন্ম হয়েছে। এবার প্রাণী যাতে চাঁদে জীবনধারম করতে পারে, সেই চেষ্টাই করছে তারা। এই গবেষণার শীর্ষে রয়েছেন চঙ্গকিং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রযুক্তি বিভাগের জি জেঙ্গসিন। তাঁর প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনেই এই খবর মিলেছে।


তবে এর আগেও স্পেস স্টেশনে উদ্ভিদের জন্ম হয়েছে। পৃথিবীর নিম্নকক্ষে আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে অঙ্কুরোদ্গম ঘটিয়ে উদ্ভিদের জন্ম ঘটেছে। এর পিছনে কৃতিত্ব মহাকাশচারীদের। এবার জি জেঙ্গসিন চাঁদে চীনের মহাকাশ যানে কচ্ছপ পাঠাতে চান। এই চেষ্টা চীন বহুদিন ধরেই করছিল। কিন্তু প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে পারেনি। চ্যাংই–৪ মহাকাশ যান ৩ কেজির বেশি ওজন নিতে সমর্থ নয়। একটি কচ্ছপ বাড়তে থাকলে ওজন এর থেকে বেশি হবে। তাই চাইলেও কচ্ছপ পাঠানো যায়নি। তাছাড়া মহাকাশযানের মধ্যে যে পরিমাণ অক্সিজেন থাকে, তা দিয়ে একটি কচ্ছপ ২০ দিন বেঁচে থাকতে পারে, জানালেন জি। এবার তাই বেশি অক্সিজেন ধারণ করতে পারে এমন মহাকাশ যান তৈরি করতে চলেছে চীন।