সবুজ, গেরুয়া থেকে শুরু করে লাল। সব দলেরই, লক্ষ্য এখন ধর্মতলা চত্বরের ওই ছোট লালবাড়িটা। রাত পোহালেই কলকাতার পুরভোট(Corporation vote)।

রবিবার কলকাতা পুরসভার ভাগ্য নির্ধারণ করতে সকাল থেকেই ভোট দিতে শুরু করবে শহরবাসী। কলকাতা পুরসভায় মোট ওয়ার্ড রয়েছে ১৪৪টি।

আর এখানে ম্যাজিক ফিগার ৭৩। শুক্রবার বিকেল থেকেই সব বুথের ২০০ মিটারের মধ্যে ১৪৪ ধারা জারি করে দিয়েছে প্রশাসন।

সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে বাইক র‌্যালি, জমায়েত ইত্যাদি। এসব দেখলেই পুলিশকে পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছে কমিশন (West Bengal State Election Commission)।

রবিবার পুরভোটের(Corporation vote) লাইনে দাঁড়াবে কলকাতাবাসী।

তার আগে শুক্রবার বিকেল থেকেই শহরে শুরু হয়েছে রুটমার্চ (Route March)।

রাজ্য নির্বাচন কমিশন নির্দেশ অনুযায়ী, শুক্রবার সন্ধে থেকেই সব বুথের ২০০ মিটারের মধ্যে জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা।

রবিবার সকালে বন্ধ থাকবে বড় বড় দোকান, শপিং মল এবং বেসরকারি সব অফিস।

কোনও ধরনের জমায়েত হলেই তৎক্ষণাৎ পদক্ষেপ নেওয়া হবে পুলিশের তরফে। শহরে নির্মীয়মাণ বাড়ি, কমিউনিটি হল ও সব লজগুলিতে কড়া নজরদারি থাকবে পুলিশের।

পাশাপাশি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে বাইক র‍্যালি।

বেআইনি অস্ত্র, মদ সব বাজেয়াপ্ত করা হবে। এছাড়াও শহরের সীমান্ত সিল করে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভোটের দিন রবিবার সব ওয়ার্ড মিলিয়ে ২৩ হাজারেরও বেশি সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী মোতায়েন থাকবে বলে জানিয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন।

রাজ্য নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, কলকাতায় মোট বুথ ৪ হাজার ৯৫৯টি।

এরমধ্যে উত্তেজনাপ্রবণ বুথের সংখ্যা ১ হাজার ১৩৯।

কলকাতা পুরভোটে (Corporation vote) তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় জায়গা পেয়েছেন একাধিক হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার আত্মীয়রা।

এই তালিকায় নাম রয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) ভ্রাতৃবধূ থেকে শশী পাঁজা (Shashi Panja), চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যর (Chandrima Bhattacharya) সন্তান সকলেরই।

এবার শান্তনু সেন (Shantanu Sen) তৃণমূলের প্রার্থীতালিকা থেকে বাদ গেলেও, তাঁর স্ত্রীকে প্রার্থী করেছে তৃণমূল (TMC)।