নিউজপোল ডেস্ক: পুলিশকে বোকা বানিয়ে অপরাধী ফেরার হয়েছে, বাস্তব এবং রুপোলী পর্দা দুটোতেই এরকম শোনা যায়। কিন্তু গুজরাটের দ্বারকায় সম্প্রতি দেখা গেল এর ঠিক উল্টো ঘটনা। ১ এপ্রিল অর্থাৎ এপ্রিল ফুলস ডে-তে, এক দাগি অপরাধীকে বোকা বানিয়েই গ্রেফতার করল পুলিশ।
অপরাধীর নাম মহম্মদ আসলাম। বছর ৪৫-এর এই এটিএম ডাকাত গাজিয়াবাদের লোনির রাম পার্ক অঞ্চলের বাসিন্দা। কুখ্যাত এই অপরাধী আসামি উত্তর প্রদেশ, কর্ণাটক এবং দিল্লীর অনেকগুলো এটিএম লুঠের ঘটনায় অভিযুক্ত। সে গ্রেফতার হয় উত্তম নগর থেকে। দ্বারকার ডিসিপি আন্তো অ্যালফনসে জানিয়েছেন, পুলিশের কাছে আগেই খবর ছিল যে আসলাম সেদিন রাত্রে উত্তম নগরের এই এটিএমটি লুঠ করতে আসবে। সেইমতো পুলিশ কর্মীরা লুঙ্গি-কুর্তা পরে ডাকাত সেজে সেখানে অপেক্ষা করছিল। পুলিশ কর্মীদের দেখে যাতে সে ভাবে, এরা একই উদ্দেশ্যে অর্থাৎ এটিএম লুঠ করতে সেখানে জড়ো হয়েছেন। রাত ৯টা নাগাদ আসলাম সেখানে এসে পৌঁছয়। তাঁদের সঙ্গে বখরা নিয়ে আলোচনাও হয় আসলামের। লুঠ ভাগ করে নিতে রাজি হয় আসলাম। এরপরেই পুলিশ কর্মীরা সবাই মিলে তাকে এটিএম কিয়স্কের ভেতরে আটকে ফেলে এবং পরবর্তীকালে গ্রেফতার করে।
জেরার মুখে নিজের অপরাধ স্বীকার করেছে আসলাম। জানিয়েছে তার আদি বাড়ি মেওয়াটের কারান্দায়। উত্তর প্রদেশের কানপুরে এবং কর্নাটকের একাধিক এটিএম লুঠের সঙ্গে সে যুক্ত। প্রত্যেক সময় আলাদা আলাদা নাম ব্যবহার করার দরুন পুলিশ কখনওই তার আগের অপরাধের সঙ্গে তাকে মিলিয়ে উঠতে পারেনি। পুলিশ সূত্রে পাওয়া খবর অনুসারে, আদালত আসলামকে ঘোষিত অপরাধীর তকমা দিয়েছে। ২০১২ সালে মৌর্য এনক্লেভের একটি এটিএম লুঠ করার সময় সেখানকার নিরাপত্তা কর্মীর গুলিতে আসলামের এক সহযোগীর মৃত্যু হয়। সেই ঘটনায় আসলামও ধরা পড়েছিল কিন্তু পরবর্তীকালে সে জেল ভেঙে পালায়।