নিউজপোল ডেস্ক: শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে পণের জন্য নিগ্রহের মামলা করেছিলেন উত্তরপ্রদেশের সিম্মি। লখনউয়ের আদালতে চলছে সেই মামলা। শেষ শুনানির দিন আদালত চত্বরে সিম্মিকে একটি চিউয়িং গাম দিতে চান তাঁর স্বামী সৈয়দ রশিদ। সিম্মি প্রত্যাখ্যান করলে, রাগের মাথায় তৎক্ষণাৎ তিন তালাক দিয়ে বিয়ে নাকচ করেন রশিদ। সিম্মির আইনজীবীর সামনেই ঘটে এই ঘটনা।

২০০৪ সালে বিয়ে হয়েছিল রশিদ এবং সিম্মির। তবে শ্বশুরবাড়ির লোকের বিরুদ্ধে পণের জন্য নিগ্রহের এই মামলা সিম্মি সম্প্রতি দায়ের করেছিলেন। ইন্দিরা নগর থানার পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, মুসলমান মহিলাদের বিবাহ এবং সুরক্ষা আইন ২০১৯-এর আওতায় রশিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে এই সমস্ত অভিযোগেরই তদন্ত চলছে। তবে এত তুচ্ছ কারণের জন্য তালাক দেওয়া শুনতে অদ্ভুত লাগলেও, এ ধরনের ঘটনা নজিরবিহীন নয়। সম্প্রতি রাজস্থানে পণে গাড়ি না পাওয়ার জন্য বিয়ের কয়েক ঘণ্টা পরই স্ত্রীকে তালাক দেন স্বামী। সবজি কেনার জন্য স্বামীর থেকে ৩০ টাকা চাওয়ার কারণে নয়ডায় সর্বসমক্ষে স্ত্রীকে তালাক দেন স্বামী। এছাড়া ফোন অথবা হোয়্যাটসঅ্যাপে তালাকের খবর পাওয়া গেছে। কয়েক মাস আগেই তিন তালাক বেআইনি ঘোষণা করে আইন এসেছে।