নিউজপোল ডেস্ক: মূক এবং বধিরদের সঙ্গে যোগাযোগ করার ক্ষেত্রে এতদিন প্রতিকূলতা ছিল অনেকটাই। তাঁদের নির্দিষ্ট ভাষা অথবা সাইন ল্যাঙ্গোয়েজ থাকলেও, বেশিরভাগ মানুষই সেই ভাষায় প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নন। সুতরাং আলাপে ফাঁক থেকে যেত অনেকটাই। সেটার সমাধান হিসেবেই এসে গেল ‘কমিউনিকেশন মেথড ডিভাইস’। মূক-বধিরদের মনে ভাব বুঝতে পারে এই যন্ত্রের আবিষ্কারক বর্ধমানের কালনার বাসিন্দা গোবিন্দ মন্ডল।

পেশায় বস্ত্র ব্যবসায়ী গোবিন্দআবু জানান, ২০০৪ সালে কালনায় এক মূক-বধির ছাত্রী এসেছিলেন। সেই সময় তাঁর কথা বুঝতে পারেননি গোবিন্দবাবু। ঘটনায় খারাপ লেগেছিল তাঁর। তখন থেকেই তিনি ভাবতে শুরু করেন, কী করে এই সমস্যার সমাধান করা যায়। গত ১৬ বছরের নিরলস প্রচেষ্টায় ২০২০ সালে তৈরি হয়েছে এই যন্ত্র। এর সাহায্যে সহজেই সাধারণ মানুষের কথা বুঝে তাঁদের উত্তর দিতে পারবেন মূক-বধিররা। একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল পেলেই সম্ভব করা যাবে এই অসম্ভব। গোবিন্দবাবু জানিয়েছেন, অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সঙ্গে দুটো অতিরিক্ত অ্যাপ থাকবে। মাইক্রোফোন এবং স্পিকারের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে একটি ভয়েস সফটওয়্যর। মাইক্রোফোনে কথা বললেই মোবাইলের পর্দায় সেটা ফুটে উঠবে এই অ্যাপের মাধ্যমে। একই ভাবে অ্যাপের সাহায্যে কথার উত্তরও দিতে পারবেন তাঁরা। স্পিকারের মাধ্যমে সেটা শুনতে পাবেন প্রশ্নকর্তা।

ইতিমধ্যেই পেটেন্ট পেয়ে গেছে গোবিন্দবাবুর এই যন্ত্র। সমস্ত ভাষাতেই কাজ করে এটি। কালনার আর এক মূকবধির বাসিন্দা চন্দ্রাণীকে এই যন্ত্র দিয়েছেন তিনি, শিখিয়েও দিয়েছেন তাঁর ব্যবহার। চন্দ্রাণীর আসন্ন বিবাহে তাঁর হবু স্বামী সোমনাথ মাঝিকেও এই যন্ত্র প্রদান করবেন বলে জানিয়েছেন গোবিন্দবাবু।