নিউজপোল ডেস্ক: নির্বাচন প্রার্থী হিসেবে জায়গা করে নিচ্ছেন গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের তারকারা। সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তাঁদের নিয়ে ট্রোলিংয়েরও শেষ নেই। তবে নির্বাচনের সময় ছাড়াও সারা বছর ধরেই যাঁকে সবচেয়ে বেশি ট্রোলিংয়ের শিকার হতে হয়, তিনি টলিউড অভিনেতা দেব। অথচ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শুক্রবার তিনি যে সৌজন্য দেখালেন, তা বিরল। গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের সঙ্গে রাজনীতির যে পার্থক্য রয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনীতিকদের মধ্যে কাদা ছোড়াছুড়ি যখন আকছার ঘটছে, সেই পরিস্থিতিতে তারকা দেব যে রাজনৈতিক সৌজন্য দেখালেন, তা থেকে অনেক অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদেরই শিক্ষা নেওয়া উচিত বলে মনে করছেন অনেকে।
ঘাটালেই দীপক অধিকারী, ওরফে দেবের বড় হয়ে ওঠা। তৃণমূলের হয়ে ঘাটালেরই সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন গত নির্বাচনে। লোকসভা ভোটও প্রায় দরজায় কড়া নাড়ছে। এদিকে ব্যস্ত শিডিউল দেবের। দেব এন্টারটেইনমেন্ট ভেঞ্চারস-এর প্রযোজনায় অনিকেত চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালনায় ‘হবুচন্দ্র রাজা গবুচন্দ্র মন্ত্রী’ সিনেমার শ্যুটিং চলছে। অভিনেতা ব্যস্ত আছেন সেই শ্যুটিংয়েই। তবে এই ব্যস্ততার মধ্যেও হাত গুটিয়ে বসে নেই তিনি। গতকাল সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি ঘাটালের বিরোধী প্রার্থী তপন গাঙ্গুলিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি ঘাটালের মানুষের পাশে থাকার অঙ্গীকার করে লিখেছেন, ‘আমরা যে-ই জিতি বা হারি সবাই একসঙ্গে ঘাটালের মানুষজনের সুখ দুঃখের সঙ্গে থাকব।’ যদিও ফেসবুকের এই সৌজন্যসূচক পোস্টে তিনি ঘাটালের প্রার্থী তপন গাঙ্গুলির দলের নাম ভুল লিখেছেন।

জনপ্রতিনিধি হিসেবে সাংসদ দেবের এই মন্তব্যকে সমর্থন করেছেন সকলেই। সাধারণ মানুষ এই ধরনের ইতিবাচক চিন্তাধারাই প্রত্যাশা করেন বলে জানিয়েছেন অনেকে। নির্বাচনের লড়াই চলবে চলুক। কিন্তু তার জন্য আমজনতার দুর্ভোগে পড়বেন, চান না

ঘাটালের সাংসদ। দলমত নির্বিশেষে তিনি জানান, ‘ঘাটালের উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করব। আমাদের মতবিরোধ যেন উন্নয়নের অন্তরায় না হয়।’ আপাতত নির্বাচনের দিকেই তাকিয়ে আছেন ঘাটালের মানুষ। কতটা কার্যকরী হয় তাঁদের সাংসদের কথা, সেটা সময়ই বলবে।