বিজেপির নতুন রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে নিয়ে আগামী কয়েক মাস বিভিন্ন জেলায় জেলায় ঘুরবেন দলের প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ(Dilip Ghosh)।

বিভিন্ন জেলার জেলাস্তরের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি,

দলের ভিতরে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন রকমের গোষ্ঠী সমীকরণও কীভাবে দিলীপের সঙ্গে ঘুরে সুকান্ত পাওয়ার চেষ্টা করবেন।

সূত্রের খবর, শুক্রবার তারাপীঠ মন্দিরে পুজো দিয়ে দিলীপ ঘোষ(Dilip Ghosh) তাঁর এই ‘প্রশিক্ষণ পর্ব’ শুরু করবেন।

তার আগে, বৃহস্পতিবার বীরভূমের স্থানীয় বিজেপি নেতাদের সঙ্গে ‘ছাত্র’ সুকান্তকে নিয়ে একাধিক বৈঠক করবেন দিলীপ ঘোষ।

রাজ্য BJP-র এক শীর্ষ নেতার কথায়, ‘আপাতত বেশ কিছু দিন সুকান্তকে দিলীপ ঘোষের(Dilip Ghosh) ট্রেনি হিসেবেই দেখা যাবে এমনটা বলা যেতেই পারে।

রাজ্যে পুরসভা ভোটের আগে সুকাম্তকে রাজ্যের বিভিন্ন স্তরের সংগঠনগুলির সঙ্গে পরিচিত করে তুলতেই পার্টি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

সেপ্টেম্বর মাসে বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদে দায়িত্ব পেয়েই সুকান্ত প্রথমেই বার্তা দেন যে,

দিলীপ ঘোষের সহযোগিতা ছাড়া তিনি কিছুই করতে পারবেন না।

Dilip Ghosh is active now to rescue his own place in Bengal Bjp
সুকান্ত মজুমদার

রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের একাংশের মতে, দলের পরিষদীয় দলনেতা তথা বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে(Subhendu Adhikari) ‘চাপে’ রাখতে

দিলীপ ঘোষও রাজনৈতিক সমীকরণকে কাজে লাগিয়ে সহজ অঙ্কে হাত মিলিয়েছেন সুকান্তর সঙ্গে।

শোনা যায়, ঘনিষ্ঠ মহলে দিলীপ হামেশাই বলেন, ‘রাজনীতিতে প্রাসঙ্গিক থাকাই সব চেয়ে জরুরি।’

কারণ দিলীপ বিলক্ষণ জানেন, সুকান্তর জেলা সফরের ট্রেনিং দিলে বিজেপির নতুন রাজ্য সভাপতির চেয়ে জনগনের কাছে গ্রহণযোগ্যতা বিলক্ষণ বেশি পাবেন তিনি।

সেই সঙ্গে দলের নিচুতলার নেতা-কর্মীদের কাছেও আরো একবার এই বার্তা পৌঁছে দেওয়া যাবে যে,

দিলীপ এখনও রাজ্য বিজেপির(Bjp) অন্যতম নেতা হিসেবে রয়েছেন।

আরও পড়ুন – Aparna Sen: বাংলাদেশ কাণ্ডে মুখ খুলে তোপের মুখে অপর্ণা সেন