দুর্গাপুজোর(Durga Puja) রঙ জনসাধারণের মনে লেগে গেছে ইতিমধ্যেই। পুজোর বাজারে ভিড় হতেও শুরু করে দিয়েছে।

দুর্গাপুজোর(Durga Puja) বাকি আর এক মাসও নেই। কিন্তু করোনার তৃতীয় ঢেউ ইতিমধ্যেই দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে।

এই পরিস্থিতিতেই কোভিড বিধি নিষেধাজ্ঞা কার্যত উপেক্ষা করে দুর্গাপূজার ভিড় উপচে পড়ছে শহরের বাজারগুলিতে। নিউ মার্কেট থেকে গড়িয়াহাট মানুষ গিজগিজ করছে।

কোভিড বিধি তথা সোশ্যাল ডিস্টানসিং(Social distancing) মেনে পুজোর বাজার করা তো অনেক দূরের কথা,

Durga Puja : Keep doing durga puja shopping but be aware
শপিং মলে কেনাকাটার ভিড়

অনেকের মুখে মাস্কটুকু অবধি নেই। কিন্তু এই উৎসবের মরসুমই বিপদের কারণ হতে পারে।

বারংবার সাবধান করা হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে রাজ্য সরকারকে চিঠি দিয়ে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে দুর্গা পূজার মরসুমে।

পশ্চিমবঙ্গ সহ একাধিক জায়গায় এখন উৎসবের মরসুম আসতে চলেছে। এই নিয়ে চিন্তায় রয়েছে সরকার পক্ষও।

দুর্গাপুজোয় সামিল হতে গিয়ে যেন কোভিড আক্রান্ত না হতে হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখাই এখন মূল লক্ষ‍্য।

ইতিমধ্যেই দেশের কোভিড গ্রাফ ওঠানামা করা শুরু করে দিয়েছে।

কখনো দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা পঁচিশ থেকে তিরিশ হাজারের আশেপাশে হলেও মাঝে মাঝেই দৈনিক মোট আক্রান্তের সংখ্যাটা বিয়াল্লিশ হাজার ছাড়িয়ে যাচ্ছে।

যা চিন্তায় রাখছে স্বাস্থ্য দফতরকে। দুর্গা পুজোর কেনাকাটা মানুষের যত বাড়ছে ততই যেন আশঙ্কা বাড়ছে।

অনলাইন কেনাকাটার(online shopping) সুযোগ থাকলেও দুর্গাপুজো প্রিয় বাঙালির মন ভরে না তাতে।

গড়িয়াহাট, নিউ মার্কেটের পাশাপাশি শপিং মল গুলিতেও ভিড় চোখে পড়ার মতো।

বিগ বাজার থেকে ম্যাক্স বিভিন্ন জায়গায় শুরু হয়ে গিয়েছে পুজো স্পেশাল ছাড় দেওয়াও।

সিটি মার্টে লাকি ড্র কুপনের মাধ্যমে ক্রেতাদের মধ্যে থেকে বেছে নিয়ে দেওয়া হচ্ছে আকর্ষণীয় পুরস্কার।

তবে পুজোর বাজারে ধাক্কাধাক্কি কিছুটা কমানোর জন্য ও সোশ্যাল ডিস্টানসিং বজায় রাখার জন্য কেনাকাটা করতে ঢোকা ও বেরোনোর রাস্তা আলাদা করার প্রস্তাব দিয়েছে রাজ্য সরকার

সব মিলিয়ে একটা জিনিস পরিষ্কার, অনলাইন কেনাকাটার চল ভালো রকম থাকলেও তাতে পুরোপুরি মজে যায়নি বাঙালি।

 

 

আরও পড়ুন – Tripura: ত্রিপুরা নিয়ে কড়া মন্তব্য কুণাল ঘোষের