নিউজপোল ডেস্কঃ কপাল খারাপ একেই বলে! খেলা শেষ হওয়ার ঠিক আগে সংযোজিত সময়ে গোল হজম করে জয়ের তিন পয়েন্ট হাতছাড়া করতে হল ইস্টবেঙ্গলকে। হায়দরাবাদ এফসির সঙ্গে ১-১ গোলে অমীমাংসিত অবস্থায় খেলা শেষ করে এক পয়েন্টেই সন্তুষ্ট থাকতে হল রবি ফাউলারের দলকে।

আগের জামশেদপুর ম্যাচের একাদশই এদিন অপরিবর্তিত রেখেছিলেন কোচ ফাউলার। শুরুর অর্ধে উল্লেখজনক কিছু ঘটেনি। ইস্টবেঙ্গল হায়দরাবাদ অর্ধে বেশ কয়েকবার আক্রমণ শানালেও প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি। অন্যদিকে, হায়দরাবাদ ইস্টবেঙ্গরের দুই উইং ধরে আক্রমণ করে বেশ কিছু ক্রস রেখেছিল। তবে সুব্রত পালের কাছে আটকে যায় তাঁদের যাবতীয় আক্রমণ।

বিরতির পর খেলার গতির বিপরীতে গোল হজম করে হায়দরাবাদ। হায়দরাবাদের হয়ে ইস্টবেঙ্গল গোলমুখী শট নিয়েছিলেন আদ্রিয়ান। সেই শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। ফিরতি বলে প্রতি আক্রমণ শানিয়ে পিকলিংটনের সহায়তা আবারও একক মুন্সিয়ানায় গোল করে যান ব্রাইট (৫৯ মিনিটে)। তবে এদিন তাঁদের গোল সংখ্যা আরও বাড়তে পারত। ৮১ মিনিটে ইস্টবেঙ্গলের একটি পেনাল্টির আবেদন বাতিল করে দেন রেফারি। বক্সের মধ্যে ব্রাইটকে ফাউল করেছিলেন গোলকিপার কাট্টিমানি। তবে পেনাল্টির আবেদনে কর্ণপাত করেননি রেফারি।

গোল হজমের পর থেকেই সমতা ফেরাতে আক্রমণের ঝাঁজ বাড়াতে থাকে নিজামরা। দুই উইং ধরে বার বার একাধিক আক্রমণ তুলে আনতে থাকেন হোলিচরণ, সান্তানারা। দীর্ঘ অপেক্ষার পর অবশেষে কাঙ্ক্ষিত গোল পেয়ে যায় হায়দ্রাবাদ। অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে আরিদানে সান্তানা স্কোরলাইন ১-১ করে যান সানদাজার পাস থেকে। খেলা শেষ হওয়ার আগে আবার লাল কার্ড দেখে মার্চিং অর্ডার পেয়ে বেরিয়ে যেতে হয় হায়দরাবাদের মহম্মদ ইয়াসিরকে।

এই ম্যাচ ড্র করে ১৭ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে নবম স্থানে রইল ইস্ট বেঙ্গল। অন্যদিকে সমসংখ্যক ম্যাচে হায়দ্রাবাদের ২৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে তৃতীয় স্থানে রয়েছে।