রথের মেলা দেখে ফেরার পথে চরম বিপত্তি! মেলা থেকে ফেরার পথেই গণধর্ষণের শিকার হলেন আদিবাসী এক গৃহবধূ। ৩ যুবক একেবারে রাস্তা থেকে ওই গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ। নক্কার জনক ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের (East Burdwan) আউশগ্রাম থানা এলাকায়। শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটলেও প্রকাশ্যে এসেছে শনিবার। নক্কার জনক একাজ করে অভিযুক্তরা অবশ্য রেহাই পায়নি। গৃহবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে এদিন বিকালে ৩ যুবককে গ্রেফতার করেছে আউশগ্রাম থানার পুলিশ। ধৃতদের রবিবার বর্ধমান আদালতে পেশ করা হয়। তবে এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

East Burdwan: Panic erupts over Burdwan gang-rape
বর্ধমানের গণধর্ষণ কাণ্ডে আতঙ্ক রাজ্যজুড়ে

পুলিশ সূত্রের খবর, ধৃত ৩ যুবকের নাম রাজেশ দে, বিপত্তারণ পাল ও তারকনাথ পাল। তিনজনেরই বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের (East Burdwan) আউশগ্রাম থানা এলাকায়। ঐ গ্রামেরই এক আদিবাসী গৃহবধূকে এই তিন যুবক মিলে রাস্তা থেকে মোটরবাইকে করে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। আউশগ্রাম এলাকারই বাসিন্দা অভিযুক্ত ৩ যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। নির্যাতিতা গৃহবধূকেও বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে শারীরিক পরীক্ষা করায় আউশগ্রাম থানার পুলিশ।

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে রথের মেলা দেখার উদ্দেশ্যে ননদকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হোন আউশগ্রামের (Ayushgram) ওই আদিবাসী গৃহবধূ। রাতে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা ভুল করে তাঁরা দিগনগর-আলিগ্রাম রাস্তায় উঠে পড়েন। কিছুটা যাওয়ার পর ননদের এক পরিচিতর সঙ্গে দেখা হয়। তাঁরা কথা বলতে শুরু করলে গৃহবধূ একাকী কিছুটা এগিয়ে যান। কিছুটা যাওয়ার পর রাস্তা চিনতে না পেরে একটি কালভার্টের কাছে ননদের জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন তিনি। সেই সময়ই রাজেশ দে, বিপত্তারণ পাল ও তারকনাথ পাল মোটরবাইকে করে এসে তাঁকে তুলে নিয়ে যান এবং কিছুটা দূরে মাঠে নিয়ে গিয়ে ৩ জন মিলে তাঁকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ।