এসএসসি দুর্নীতিতে ধৃত পার্থ ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতার (Arpita Mukherjee) বেলঘরিয়ার রথতলার ফ্ল্যাটে টাকার পাহাড়। ইডি সূত্রে খবর, ওই ফ্ল্যাট থেকে আনুমানিক নগদ ২০ কোটি টাকা পাওয়া গিয়েছে। ৩ কেজি সোনার বার, বিদেশি মুদ্রা, রুপোর কয়েন, জমির দলিল বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি। এখনও চলছে টাকা গোনার প্রক্রিয়া। টাকার পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, এর আগে টালিগঞ্জের অভিজাত আবাসনের ফ্ল্যাট থেকে ২১ কোটি ৮০ লক্ষ নগদ টাকা বাজেয়াপ্ত করেছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

বুধবার সন্ধেয় ইডি’র আধিকারিকরা বেলঘরিয়ার রথতলার অভিজাত আবাসনের ফ্ল্যাটে টাকার হদিশ পান। সঙ্গে সঙ্গে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার আধিকারিকদের খবর দেওয়া হয়। এক মিনিটে চার হাজারটি নোট গুনতে পারার ক্ষমতাসম্পন্ন চারটি মেশিন নিয়ে রথতলার ফ্ল্যাটে পৌঁছন আধিকারিকরা। সেখানে তল্লাশি চালিয়ে ২ হাজার এবং ৫০০ টাকার নোট মিলিয়ে আনুমানিক নগদ ২০ কোটি টাকা পাওয়া গিয়েছে। ৩ কেজি সোনার বার, রুপোর কয়েন পেয়েছেন ইডি আধিকারিকরা। বেশ কয়েকটি জমির দলিলও বাজেয়াপ্ত করেছেন তদন্তকারীরা। জানা গিয়েছে, জেরায় অর্পিতাই এই বিপুল পরিমাণ টাকা এবং সোনার কথা জানিয়েছিল। পার্থ ‘ঘনিষ্ঠে’র থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালাতেই নগদ টাকা এবং সোনা পেয়েছেন তদন্তকারীরা।

উল্লেখ্য, বুধবার সকালে বেলঘরিয়ার রথতলার অভিজাত আবাসনে হানা দেন ইডি আধিকারিকরা। সেখানে ব্লক ২ এবং ব্লক ৫-এ মোট দু’টি ফ্ল্যাট ছিল অর্পিতার। ব্লক ২-এর ফ্ল্যাট থেকেই টাকা এবং সোনা পাওয়া গিয়েছে। ব্লক ৫-এর ফ্ল্যাটটিও তল্লাশি চালান তদন্তকারীরা। ওই ফ্ল্যাট দু’টি সিল করে দেওয়া হয়েছে। এদিকে, ৮ নম্বর বালিগঞ্জ প্লেসের আবাসনে ৯ ঘণ্টা তল্লাশি চালিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথি বাজেয়াপ্ত করেছেন ইডি আধিকারিকরা।