নিউজপোল ডেস্ক:‌ তিনি হিন্দু নন। তিনি মুসলিম নন। তিনি খ্রিস্টানও নন। তাঁর কোনও ধর্ম নেই। ধর্ম তাঁর একটাই, তিনি ভারতীয়। বললেন অমিতাভ বচ্চন। ‘‌কওন বনেগা ক্রোড়পতি’‌ অনুষ্ঠানে সমাজকর্মী বিন্দেশ্বর পাঠকের সঙ্গে কথোপকথনের সময় এই তথ্য তুলে ধরেন তিনি। তখনই জানান, নিজের পদবির নেপথ্যে থাকা গল্প।

বাবার সঙ্গে

বিগ বি জানান, এই ‘‌বচ্চন’‌ পদবির সঙ্গে কোনও ধর্মেরই যোগ নেই। তাঁর বাবা হরিবংশ রাই বচ্চন এই ধর্মভেদের ঘোরতর বিরোধী। ধর্মের কোনও চিহ্নই তিনি বহন করতে চাইতেন না। তাঁদের প্রকৃত পদবি ছিল শ্রীবাস্তব। এই পদবি দ্বারাও তিনি পরিচিত হতে চাননি। কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে পদবি উল্লেখ করার প্রয়োজন হয়ে পড়ে। সে রকমই একটা সময় এসেছিল। ছেলে অমিতাভকে কিন্ডারগার্টেন স্কুলে ভর্তি করাতে নিয়ে যান হরিবংশ। কর্তৃপক্ষ তাঁর পদবি জিজ্ঞেস করেন। তখনই হরিবংশ জানান, তাঁর পদবি ‘‌বচ্চন’‌। সেই থেকে তাঁরা নামের পাশে বচ্চন পদবি ব্যবহার করে আসছেন। জনগণনার জন্য যখন সরকারি কর্মীরা তাঁর ধর্ম জানতে চাইতেন, তখন নিজের কোনও ধর্ম উল্লেখ করেন না অমিতাভ। তিনি বলেন, তাঁর পরিচয় একটাই। তিনি ভারতীয়।


উৎসব, অনুষ্ঠান নিয়েও তাঁর বাবা কিছু নীতি ছিল। সেকথাও গল্পের ছলে বলেছেন অমিতাভ। দোলে গুরুজনের পায়ে রং দেওয়ার রেওয়াজ রয়েছে। হরিবংশ রাই কিন্তু সবার প্রথমে গুরুজনের পায়ে আবীর দিতেন না। পরিবর্তে সাফাইকর্মীর পায়ে আবীর দিয়ে দোল খেলা শুরু করতেন। ধর্ম, বর্ণের ভেদাভেদ তাঁর পরিবার বরাবরই এড়িয়ে চলেছে, সেই কথাই বলেন অমিতাভ। সম্প্রতি ভারতীয় সিনেমায় অবদানের জন্য দাদা সাহেব ফালকে পুরস্কার পেলেন তিনি।