নিউজপোল ডেস্ক: জাল নোটের সমস্যা চিরকালীন। সনাক্ত করার নতুন নতুন উপায়ও বেরিয়েছে। কিন্তু বর্তমানে ২০০০, ৫০০ ছাড়াও ছোট, বড় অঙ্কের অনেক নতুন নোট এসেছে বাজারে। আসল কিনা, সনাক্ত করার ক্ষেত্রে সমস্যায় ভুগছেন অনেকেই। এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে আইআইটি খড়গপুরের ছাত্ররা আবিষ্কার করলেন নতুন সমাধান। শুধু তা-ই নয়, এই প্রযুক্তির সাহায্যে পারমাণবিক বিকিরণও চিহ্নিত করা যাবে বলে দাবি পড়ুয়াদের।

দেশের আইআইটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে অন্যতম আইআইটি খড়গপুর। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হল স্মার্ট ইন্ডিয়া হ্যাক্যাথন ২০১৯। সেখানেই আইআইটি খড়গপুরের ছ’জন শিক্ষার্থীর দল প্রকাশ করলেন তাঁদের নতুন আবিষ্কার। স্মার্টফোন অ্যাপ্লিকেশনের জন্য তাঁরা একটি কোড বানিয়েছেন, যা থেকে সহজেই জাল নোট সনাক্ত করা সম্ভব। পড়ুয়াদের এই দলের সদস্যরা হলেন টিওয়াইএসএস সন্তোষ, সতীশ কুমার রেড্ডি, বিপুল তোমর, সাই কৃষ্ণা, দৃষ্টি তুলসি এবং ডিভি সাই সূর্য। দলের প্রধান টিওয়াইএসএস সন্তোষ বলেন, ‘কোনও নোটের ছবি তুলে গ্রাহককে এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে আপলোড করতে হবে। সঙ্গে সঙ্গেই নোটটি জাল কিনা চিহ্নিত করে দেবে অ্যাপ্লিকেশনটি।’

স্মার্টফোন এখন প্রত্যেকেরই হাতের নাগালে। তাই এই খবরে খুশি আমজনতা। তাছাড়া নতুন নোট নিয়ে সাধারণ মানুষের মনে নানা প্রশ্নও রয়েছে। মধ্য কলকাতার বাসিন্দা তমাল পালের কথায়, ‘আগের নোটগুলো জাল কিনা, তাও বোঝার উপায় ছিল। এখনকার নতুন নোটগুলি দেখে তা বোঝার উপায় নেই। তবে ধীরে ধীরে এগুলোও একদিন অভ্যেসে পরিণত হবে। ততদিন এই ধরনের অ্যাপ্লিকেশন আমাদের মতো সাধারণ মানুষের কাজে লাগবে।’ এই পরিস্থিতিতে জাল নোট সনাক্তকরণের এই উপায় কার্যকরী হবে বলেই মনে করছেন আইআইটি খড়গপুরের পড়ুয়ারা।