ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী আজ একটি অনন্য মাইলফলক স্পর্শ করলেন এরই মধ্যে।(Football)

বর্ণাঢ্য আন্তর্জাতিক ফুটবল কেরিয়ারে গোল সংখ্যার বিচারে আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার লিওনেল মেসিকে স্পর্শ করলেন সুনীল ছেত্রী।

 

ইতিপূর্বে ১৫৬ ম্যাচে ৮০ গোল করেছিলেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক।

কিন্তু, আজ এস.এ.এফ.এফ (SAFF) চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল ম্যাচে একটি গোল করে মেসিকে স্পর্শ করলেন সুনীল।

তবে এই মাইলস্টোন ছুঁতে ১২৫ ম্যাচ খেলেছেন ভারত অধিনায়ক নিজে।

শনিবার নেপালকে কার্যত উড়িয়ে এস.এ.এফ.এফ (SAFF) চ্যাম্পিয়নশিপ জিতল ভারতীয় ফুটবল দল।

এই টুর্নামেন্টের শুরুটা ভারত অবশ্য একেবারেই ভালো করেনি।

বাংলাদেশ এবং নেপালের বিরুদ্ধে ড্র করে ফাইনালের রাস্তা নিজেরাই কঠিন করে ফেলেছিলেন সুনীল ছেত্রী ও তার দল।

শেষমেশ গ্রুপ পর্যায়ের শেষ ম্যাচে মালদ্বীপকে পরাস্ত করে ফাইনালের রাস্তা প্রশস্থ করে ভারতীয় দল।

এই ম্যাচেও সুনীল জোড়া গোল করেছিলেন। আর সেইসঙ্গে পেলেকে টপকে আন্তর্জাতিক গোল সংখ্যায় ষষ্ঠস্থানে উঠে এসেছিলেন।

তাঁর সঙ্গে যুগ্মভাবে ষষ্ঠস্থানে ছিলেন জাম্বিয়ার গডফ্রে চিতালু।

 

 

তবে এই তালিকায় সবার উপরে রয়েছেন পর্তুগালের অধিনায়ক ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

তিনি ১৮২ ম্যাচে ১১৫ গোল করেছেন রোনাল্ডো। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ইরানের আলি দেই।

তাঁর নামের পাশে ১০৯ গোল জ্বলজ্বল করছে। মালয়েশিয়ার মোক্তার দাহারি ( ৮৯ ) এবং স্পেনের ফেরেন পুসকাস ( ৮৪ ) যথাক্রমে তৃতীয় এবং চতুর্থ স্থানে রয়েছেন। (Football)

সেরা জোড়া গোল সুনীলের , SAFF ফাইনালে ভারতীয় ফুটবল দল এবার শনিবারের ফাইনাল ম্যাচের কথায় একটু আসা যাক।

ম্যাচের ৪৯ মিনিটে কাঙ্খিত গোল পেয়ে যায় ভারত।

ডান প্রান্ত দিয়ে উঠে এসে সেন্টার করেন প্রীতম কোটাল। দুর্দান্ত হেডে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন সুনীল ছেত্রী।

এই গোলের সঙ্গে সঙ্গে লিওনেল মেসিকে স্পর্শ করেন তিনি।

দেশের হয়ে দুজনের গোল সংখ্যাই ৮০। এক মিনিট পরেই ব্যবধান বাড়ান সুরেশ সিং।(Football)

মহম্মদ ইয়াসিরের কাছ থেকে বল পেয়ে দুর্দান্ত শটে তিনি গোল করেন।

৯০ মিনিটে ভারতের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন সাহাল। অবশেষে নেপালকে ৩-০ ব্যবধানে হারি এস.এ.এফ.এফ (SAFF) চ্যাম্পিয়নশিপের আধিপত্য বজায় রাখল ভারত।

Football: Sunil Chhetri is now the equal of legend Messi in terms of goals
সুনীল ছেত্রী

এই নিয়ে ৮ বার চ্যাম্পিয়ন হল তারা। ২০১৫ সালে কেরলে আফগানিস্তানকে হারিয়ে শেষবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন সুনীল ছেত্রীরা।

মালদ্বীপের বিরুদ্ধে লিগের শেষ ম্যাচে লাল কার্ড দেখায় ফাইনালে রিজার্ভ বেঞ্চে ছিলেন না ভারতীয় দলের কোচ ইগর স্টিম্যাচ।

তার পরিবর্তে দল পরিচালনা করেন সহকারী কোচ বেঙ্কটেশ।