নিউজপোল ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিকালে লকডাউনের জেরে রাজ্যে স্কুল শিক্ষকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ভবিষ্যত অনিশ্চয়তা। বেতন বৈষম্যের জেরে একপ্রকার জেরবার তাঁদের জীবন। ফলস্বরূপ অবস্থান বিক্ষোভের সিদ্ধান্ত নিলে পুলিশের তরফ থেকে কোনোরকম ছাড়পত্র না মেলায় হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন তাঁরা। সমস্ত বিষয়টি খতিয়ে দেখে অবশেষে তাঁদের ছাড়পত্র দিলো কলকাতা হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার কোর্টের তরফ থেকে দেওয়া হলো তাঁদের এই ছাড়পত্র। তবে কোভিড প্রটোকল মেনেই তাঁদের এই অবস্থান বিক্ষোভ চালাতে হবে টানা সাতদিন, এমনটাই নির্দেশনা জারি করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। এই বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালীন মাস্ক যেমন পড়তে হবে তেমনি পাশাপাশি হাত স্যানিটাইজেশনের জন্য কাছে স্যানিটাইজারের বন্দোবস্তও করতে হবে।

অন্যদিকে, স্কুলের স্নাতক শিক্ষকদের এই আবেদনে কোর্টের তরফ থেকে সাতদিন ছাড়পত্র মিললেও অবস্থান কর্মসূচীর সময়সীমা সংক্রান্ত বিষয়ে এখনও পর্যন্ত স্কুলের পার্শ্ব শিক্ষকদের স্পষ্টভাবে কিছু জানানো হয়নি। অর্থাৎ আপাতত তাঁরা অনির্দিষ্টকালের জন্য এই অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যেতে পারেন। এই বিষয়ে পার্শ্ব শিক্ষক এবং স্নাতক শিক্ষকরা জানিয়েছেন, “করোনা প্রাক্কালে আমাদের অবস্থা যথেষ্ট সংকটময় থাকলেও বারংবার এই পরিস্থিতিতে বেতনের বৈষম্য ঘটাচ্ছে রাজ্য সরকার। অনেকবার আবেদন করা সত্বেও এই সরকার আমাদের এই বক্তব্যে কোনোরকম কর্ণপাত করেনি। তাই আমরা এই পদক্ষেপ গ্রহণ করলাম।”