নিউজপোল ডেস্ক:‌ মাথায় শিং। ছুঁচলো দাঁত। রক্ত মাখা হাত দিয়ে কাঁচা মাংস খাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। এভাবেই একটি পোস্টারে নরেন্দ্র মোদীকে ড্রাকুলা হিসেবে দেখানো হল, যিনি কিনা কাশ্মীরের মানুষকে খেয়ে ফেলছেন। সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল সেই ছবি। বলা হয়, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা নাকি এই পোস্টার নিয়ে মিছিল করছেন। সেই দাবিই এবার খারিজ হয়ে গেল। জানা গেল, লন্ডনে ভারতীয় হাইকমিশনের সামনে এই পোস্টার নিয়ে প্রতিবাদ করা হয়েছে।
লন্ডন নিবাসী কাশ্মীরি জনৈক নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে এই সত্য তুলে ধরেছেন। ফজলুল করিম নামে ওই ব্যক্তি পোস্টটি দিয়েছেন ১৮ আগস্ট। লিখেছেন, জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার প্রতিবাদে লন্ডনে ভারতীয় হাইকমিশনের সামনে জড়ো হন বহু মানুষ। ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা দিবসে এই বিক্ষোভ চলে। কাশ্মীরকে বিশেষ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করার জন্য তাঁরা প্রতিবাদ জানান।


ওই বিক্ষোভ স্থলে কয়েক জন পাকিস্তান এবং কাশ্মীরের পতাকা দেখান। বিরোধিতা করতে অনেকে আবার খালিস্তানের পতাকা দেখান। দুই পক্ষের মধ্যে বচসা বেঁধে যায়। তা থেকে হাতাহাতি। এমনকী একে অন্যকে ডিম, জুতো, পাথরও ছোড়েন। কিন্তু এসব সত্য জানার আগেই একদন নেটিজেন দাবি করে বসেন, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারাই প্রধানমন্ত্রীর বিরোধিতা করে এ ধরনের আন্দোলন চালাচ্ছেন। পরে অবশ্য আলিগড় পুলিশও গোটা ঘটনার তদন্ত করে সোশ্যাল সাইটে জানিয়ে দেয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা এসব করেননি। পুরোটাই গুজব।